Archive

October 2020

Browsing

Reading Time: 3 minutes নানান প্রয়োজনে যখন ঘরের বাইরে থাকা হয় তখন এই কোলাহল যেন গায়ে তেমন লাগে না! কেননা, আমরা জানি দিনশেষে আমরা পৌঁছে যাবো শান্তির জায়গায় আমাদের ঘরে! কিন্তু, সেই ঘরও যদি শান্ত আর নিরিবিলি না হয় তাহলে কিন্তু বিপদ! ব্যস্ততা কাটিয়ে যখন অবসর খুঁজে পাই তখন যদি নানান শব্দ তাড়া করে বেড়ায় তখন বিশ্রামও বিরক্তিকর হয়ে ওঠে। অবসর বা বিশ্রামের সময়টুকু যেন একান্তই শান্তি আর স্বস্তির হয় তাই আজকের এই ব্লগ লেখা! নিজের ঘরকে একদম নিরিবিলি তার শান্তির জায়গা করতেই ঘর সাউন্ড প্রুফ করার বেশ কিছু চমৎকার টিপস নিয়ে লিখছি পড়তে থাকুন!  দেয়াল  পাশের ঘরের অবাঞ্ছিত শব্দ যেমন আপনাকে বিরক্ত করে তেমনি আপনার ঘরের শব্দগুলো বাইরে গেলেও আপনার ভালো কিন্তু লাগবে না! নিজের প্রাইভেসিও কিন্তু এতে ব্যাহত হয়। তাই এই সমস্ত সমস্যা থেকে বাঁচতে ঘরের প্রতিটি দেয়াল এবং ছাদে ফোম বা কর্কশিট জাতীয় কিছু তার উপর আবার হার্ডবোর্ড দিয়ে ২ টি করতে পারেন। এতে পাশের ঘরে কি হচ্ছে তা যেমন শুনতে…

Reading Time: 4 minutes প্রতিবছর জাতিসংঘের উদ্যোগে আয়োজিত হয় বিশ্ব শহর দিবস। এ দিবসটি সাধারণত নগরায়নের ‘সফলতার দিক বা উদ্ভূত চ্যালেঞ্জ’ কে ঘিরে আবর্তিত হয়। এ বছর বিশ্বব্যাপী ৩১ অক্টোবর ‘যত্নে থাকুক কমিউনিটি ও শহর’ মূল প্রতিপাদ্য নিয়ে দিবসটি পালিত হবে। বিশ্ব শহর দিবসের এবারের উদ্দেশ্য এমন একটি টেকসই নগরায়নের পরিকল্পনা তৈরি করা যা এই মহামারীর সময়ের জন্য উপযোগী হবে। ২০২০ সালে এ দিবস পালনের মাধ্যমে আমরা জানতে পারবো কীভাবে মেগাসিটিগুলো সাম্প্রতিক সময়ে উদ্ভূত পরিবর্তনের সাথে খাপ খাইয়ে নিতে পারে এবং এ সম্পর্কে করণীয় কী।   ‘যত্নে থাকুক কমিউনিটি ও শহর’ থিমের অর্থ আসলে কী?    বৈশ্বিক কমিউনিটিকে নগরায়নের ক্ষতিকর দিকগুলো হ্রাস করতে উৎসাহিত করা এবারের বিশ্ব শহর দিবস এর অন্যতম লক্ষ্য। বিভিন্ন জাতিকে একত্রে বৈশ্বিক নগরায়নের চ্যালেঞ্জগুলো নিয়ে কাজ করতে উদ্‌বুদ্ধ করাও এর অংশ। এ থিমের মাধ্যমে জাতিসংঘ সারা বিশ্বের কমিউনিটি ও শহরে টেকসই উন্নয়নের ধারা শুরু করতে চায়, যা সমস্ত পৃথিবীর জন্যই এখন জরুরি হয়ে উঠেছে।গত এক বছরে নগর জীবনে এসেছে বড় রকমের পরিবর্তন।…

Reading Time: 2 minutes ২০২০ সাল শেষ হতে যাচ্ছে। আগামী বছরে নতুন ঠিকানায় উঠতে মনের মত প্রপার্টি খোঁজা চাই এই মাস থেকেই। সবাই চায় শান্ত-নিরিবিলি পরিবেশে হোক নতুন আবাস, নতুন আশ্রয়। বিপ্রপার্টি টিম আপনার সেই আগ্রহ ও চাহিদা অনুযায়ী বসতবাড়ি খুঁজে দিতে প্রস্তুত। আপনি চাইলেই আগামী দু’ মাসের মধ্যেই পেয়ে যেতে পারেন আপনার স্বপ্নের প্রপার্টি। আর বাড়ি খোঁজাখুঁজির প্রক্রিয়ায় আমরা আপনাকে অফার করছি সবচেয়ে সাশ্রয়ী ইনসেন্টিভ স্ট্রাকচার ও প্রয়োজনীয় সাপোর্ট। আজকের ব্লগে আমরা অক্টোবর ২০২০ এর সেরা প্রপার্টি গুলোর মধ্য থেকে চারটি অ্যাপার্টমেন্ট সম্বন্ধে বিস্তারিত বলবো। গুলশানে বিক্রির জন্য ৫,২১১ বর্গফুটের চমৎকার একটি ডুপ্লেক্স অ্যাপার্টমেন্ট রয়েছে  বিলাসবহুল ও আভিজাত এলাকা গুলশান! যেখানে রয়েছে ডিপ্লোম্যাটদের আনাগোনা। এমন এক এলাকায় কে না থাকতে চাইবে! এখানে গড়ে উঠেছে প্রচুর রেস্টুরেন্ট, সুপার শপ, শপিং মল ও কমিউনিটি হল। ফলে আবাসিক ও বাণিজ্যিক উভয় ক্ষেত্রেই গুলশানের রিয়েল এস্টেট ভ্যালু বেড়েছে বহুগুণ। এ এলাকার যোগাযোগ ব্যবস্থাও বেশ ভালো হওয়ায় এখান থেকে ঢাকার যেকোনো জায়গায় যাতায়াত করা যায় খুব সহজে। তাই…

Reading Time: 3 minutes মডার্ন, ইন্ডাস্ট্রিয়াল বা শ্যাবি চিক এভাবে নাম বলতে থাকলে জনপ্রিয় ইন্টেরিয়র স্টাইলের নামের লিস্ট যেন বড় হতেই থাকবে। ঘরের ভেতর নিজের ব্যক্তিত্বের ছাপ কে না ফেলতে চায় বলুন! নিজের ভাল লাগা মন্দ লাগা সবকিছুই আপনি কোন না কোন স্টাইলের ভেতর খুঁজে পাবেন। তাই এই স্টাইলগুলো সম্বন্ধে জানা বেশ জরুরী। বেশির ভাগ সময় দেখা যায়, পছন্দের ইন্টেরিয়র স্টাইলের নাম বা বৈশিষ্ট্যই আমরা জানি না। কিন্তু, ঘরের সাজাতে সে স্টাইল ঠিকই ব্যবহার করা হয়। আবার কেউ কেউ নিজের অজান্তে স্টাইল নিয়ে করে ফেলেন ফিউশন! কিন্তু ঐ যে নাম জানা নেই! আজকে তাই হোম ডেকোরে জনপ্রিয় ইন্টেরিয়র ডিজাইন স্টাইল সম্বন্ধে আলাপ করবো।  দেখুন তো এখান থেকে আপনার পছন্দের স্টাইল কোনটি? পড়তে থাকুন! ছিমছাম মডার্ন স্টাইল   সোজাসাপ্টা ক্লিন এবং লাইন আর সিম্পল কিছু কালার প্যালেটের মত উপাদান নিয়েই মডার্ন  ইন্টেরিয়র স্টাইল। এছাড়াও, মেটাল, গ্লাস আর স্টিলের মত ম্যাটেরিয়ালের ব্যবহার তো থাকছেই। হোক আসবাবে কিংবা দরজা জানালায়। মডার্ন স্টাইলের মূল নির্জাসই হচ্ছে ঘরের ডেকোরে সাধারণ…

Reading Time: 4 minutes সমুদ্রতলের জগৎ সবসময়ই মনের ভেতর কৌতূহলের জন্ম দেয়। শান্ত নিশ্চুপ সমুদ্র তলে কী রহস্য লুকিয়ে আছে জানতে অনেকেরই ইচ্ছে করে। কিন্তু, এই রহস্য আজও উদঘাটন হয়নি। সমুদ্র তলে কিছু সময় থেকে যদি সেই রহস্যের কাছাকাছি যেতে পারা যায় এটাও কম কি। সামুদ্রিক মাছের সাথে ঘুরে বেড়ানো, এমন কি ঘুমাতে যাওয়া। হতেও পারে বিকেলের নাস্তার দাওয়াতে আপনার সাথে থাকতে পারে তিমি মাছও! এমন কথা শুনে কল্প কাহিনীর মত লাগলেও। পৃথিবীতে এমন কিছু থাকার জায়গা রয়েছে যেখানে থাকতে গেলে আপনি পাবেন সমুদ্র তলের পৃথিবী ঘুরে আসার সুযোগ। রাত দিন কাটাতে পারবেন সমুদ্র তলে। সারা রাত ধরে মাথার উপর ঘুরপাক খাবে শত শত সামুদ্রিক মাছ।  আকাশের নীল তো অনেকেই দেখেছেন এবার সমুদ্রের নীল দেখার পালা। কোথায় কোথায় আছে পানির নিচের হোটেল চলুন জানা যাক।  দ্যা মুরাকা –  কনরার্ড হোটেল মালদ্বীপ বিশ্বের প্রথম পানির নিচের হোটেল । বিশ্বের প্রথম পানির নিচে আবাসিক হোটেলে থাকার ব্যবস্থা করে মালদ্বীপ। মুরাকাই সেই হোটেল। ৫০০ মিটার পানির নিচে…

Reading Time: 3 minutes টেকসই আবাসন মানেই পরিবেশবান্ধব অবকাঠামো আর প্রকৃতির সাথে সহাবস্থানের নীতিমালা। পূর্বাচল অ্যামেরিকান সিটিও নবায়নযোগ্য শক্তি, কার্বন নির্গমন হ্রাস, ইনফরমেশন টেকনোলজির যথাযোগ্য ব্যবহারের মাধ্যমে তেমনি পরিকল্পনা নিয়ে গড়ে তোলা দেশের সর্বপ্রথম স্মার্ট সিটি। সেইসাথে আধুনিক জীবনযাপনের জন্য প্রয়োজনীয় সব সুযোগ-সুবিধা পূর্বাচল অ্যামেরিকান সিটি – কে করে তুলেছে কাঙ্খিত এক ঠিকানা।   পূর্বাচল অ্যামেরিকান সিটির বিস্তারিত প্রজেক্টের নাম  পূর্বাচল অ্যামেরিকান সিটি  ডেভেলপারের নাম ইউ-এস বাংলা অ্যাসেটস লিমিটেড  প্রজেক্টের ঠিকানা  পূর্বাচল  প্লটের সংখ্যা  ১৮,০০০ জমির আয়তন  ৮০০০ বিঘা  প্লটের আয়তন  ২.৮-২০ কাঠা  রাস্তার আয়তন  ২৫ ফিট, ৩০ ফিট, ৩৫ ফিট, ৪০ ফিট, ৪৫ ফিট, ৫০ ফিট, ৬০ ফিট, ৮০ ফিট, ১০০ ফিট, ১৩০ ফিট, ১৬৪ ফিট  লেকের প্রস্থ  ১৫০ ফিট  লোকেশন  অস্থাবর সম্পত্তির মূল্যমান নির্ধারণে এর লোকেশন একটি জরুরি বিষয়। গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় বা স্থাপনার কাছাকাছি এলাকায় যদি এর অবস্থান হয়, তবে এর দাম স্বভাবতই বেশি হবে। রাজউক পূর্বাচল নিউ টাউন থেকে পূর্বাচল অ্যামেরিকান সিটি পৌঁছাতে মাত্র ৫ মিনিট লাগে। কুড়িল ফ্লাইওভার থেকে পূর্বাচল…

Reading Time: 3 minutes ‘দোল দোল দুলুনি  রাঙা মাথায় চিরুনি’ ছোটবেলায় দোলনায় দোল খেতে খেতে আর ছড়া কাটতে কাটতে দোলনার সাথে আমাদের প্রথম পরিচয়। কিন্তু বড়বেলায় এসেও দোলনার প্রয়োজন ফুরোয় না। আধুনিক নাগরিক জীবনে নানা রকম দোলনা তার আবেদন ধরে রেখেছে। এটি গৃহসজ্জায়ও যোগ করেছে বাড়তি মাত্রা। চলুন আজকে জেনে আসি প্রিয় ঘরটিকে সাজিয়ে নিতে কত ধরণের দোলনা রয়েছে বাজারে? কোন ধরনের দোলনা ঘরের কোন জায়গাটির জন্য মানানসই এসবের খুঁটিনাটি।  কাঠের দোলনা নানা রকম দোলনার মধ্যে প্রথম সারিতেই আছে আসছি কাঠের। কাঠের দোলনা সাধারণত চারকোনা আকৃতির হয়। তবে চাইলে ইচ্ছেমতো দোলনাও তৈরি করে নিতে পারেন। এ ধরনের দোলনার প্রধান আকর্ষণের জায়গাটি হলো এর সূক্ষ্ম কারুকাজ কিংবা বিভিন্ন ধরনের নকশা। নকশার মধ্যে ফুল, পাতার মোটিফটাই বেশি প্রাধান্য পায়। বাজারে এ ধরণের চাহিদাও বেশি।  বাঁশ ও বেতের দোলনা কাঠের পরে বাঁশ ও বেতের দোলনাই বেশি জনপ্রিয়। ঘরের মধ্যে বাঙালিয়ানা সাজ আনতে এ দোলনার জুড়ি নেই। এসব দোলনার সুবিধা হলো, এটি বিভিন্ন আকৃতির হয়ে থাকে। চারকোনা ছাড়াও…

Reading Time: 3 minutes ভবন নির্মাণে প্রয়োজন হয় স্টিল, ইটসহ আরো অনেক কিছুই। কিন্তু এসব কিছুর ‘বাইন্ডিং’ বা একত্রীকরণ করে সিমেন্ট। সিমেন্ট ভবন নির্মাণে বহুল ব্যবহৃত একটি উপাদান। আপনার ভবনটি কতটুকু টেকসই ও দীর্ঘস্থায়ী হবে তা নির্ভর করে নির্মানকার্যে ব্যবহৃত সিমেন্টের গুণগত মানের ওপর। এজন্য নির্মিতব্য ভবনের জন্য সিমেন্ট কেনার আগে কোয়ালিটি টেস্টের মাধ্যমে সিমেন্টের গুণগত মান যাচাই করা অত্যন্ত প্রয়োজনীয়।   সিমেন্টের কোয়ালিটি টেস্ট  সাধারণত ল্যাবরেটরিতেই সিমেন্টের কোয়ালিটি টেস্ট করা হয়। তবে সব সময় ল্যাবরেটরিতে টেস্ট করার সুযোগ নাও থাকতে পারে, বিশেষত গ্রামে-মফস্বলে এ সুযোগ পাওয়া খুবই কঠিন। সেক্ষেত্রে সমাধান হতে পারে যথার্থ উপায়ে অন-সাইট টেস্ট করানো। আসুন জেনে নেই কীভাবে সিমেন্টের গুণগত মান যাচাই এর জন্য অন-সাইট টেস্ট করানো যায়।  উৎপাদনের তারিখ  সিমেন্টের গুণগত মান যাচাই এর প্রথম ধাপ উৎপাদনের তারিখ দেখে নেয়া। উৎপাদন বা মোড়কজাত করার ৯০ দিনের মধ্যে সিমেন্ট ব্যবহার করে ফেলা উচিত, কেননা সময়ের সাথে সাথে সিমেন্টের মান কমে যায়।  রং  সিমেন্ট সবসময় সবুজাভ ধূসর রংয়ের হয়। অতিরিক্ত সবুজ বা…

Reading Time: 3 minutes যেকোনো নির্মাণকাজের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ উপাদান স্টিল। কিন্তু অন্যান্য নির্মাণ সামগ্রী যেমন সিমেন্ট, ইট, বালুর তুলনায় বাংলাদেশে স্টিলের মূল্য তারতম্য হয় অনেক বেশি। এর বেশ কিছু কারণও আছে। তবে প্রথমে আসুন জেনে নেই, অন্যান্য দ্রব্যমূল্যের তুলনায় নির্মাণ সামগ্রীর মূল্যের সূচক কেন এত বেশি ওঠানামা করে। তারপর মূল্য তারতম্যের কারণগুলোর পাশাপাশি গত কয়েক বছরে স্টিলের মূল্য কেমন ছিলো সে সম্পর্কেও আলোচনা করা হবে।  নির্মাণ সামগ্রীর মূল্যের তারতম্য কেন হয়?  অর্থনীতির ভাষায়, প্রাইস ইনইল্যাস্টিসিটি বা মূল্য অস্থিতিস্থাপকতাই নির্মাণ সামগ্রীর মূল্যের তারতম্য হওয়ার কারণ। যেমন, কোনো মেটাল বা ধাতুর চাহিদা বিশ্বব্যাপী হঠাৎ বেড়ে গেলেও এর যোগান বা সাপ্লাই তাৎক্ষনিকভাবে বাড়ানো অসম্ভব। কেননা সেজন্য বাড়াতে হবে খনির সংখ্যা, নিতে হবে আরো অনেক অতিরিক্ত ব্যবস্থা, যা বাস্তবে কখনোই করা যায় না। আবার নির্মাণ সামগ্রীর মূল্য তারতম্য যত বেশিই হোক না কেন এক সামগ্রীর পরিবর্তে কিন্তু কখনোই অন্যটি ব্যবহার করা যায় না। নির্মাণ সামগ্রীর মূল্যের তারতম্য আসলে কতখানি হয় তা নির্ধারণ করা কঠিন, তবে এর প্রভাব বেশিরভাগ…

Reading Time: 4 minutes পদ্মাপাড়ের জেলা রাজশাহী ইতিহাস, ঐতিহ্য ও স্বাতন্ত্রে অনন্য। সবুজের ছায়ায় গড়ে ওঠা পরিচ্ছন্ন এ জেলাটি ভীষণ শান্তও বটে! সেইসাথে ফলের মহা সম্ভার আর রেশম শিল্পের উল্লেখযোগ্য উন্নয়নের ফলে এ জেলাটিকে অপার সম্ভাবনার শহর বললেও ভুল হবে না। তবে রাজশাহীর প্রিয় বিষয়গুলো কী কী তা কি আপনারা জানেন? সেসব জানাতেই আমাদের আজকের ব্লগ। আসুন তবে জেনে নেই রাজশাহী কেন আমার এত প্রিয়!   রাজশাহীর জীবনযাত্রা  অধিবাসীদের জীবনাচরণ, প্রচলিত প্রথা আর আচারের মাঝেই জায়গাটিকে সবচেয়ে ভালোভাবে চেনা যায়, জানা যায়। রাজশাহীর প্রিয় বিষয়গুলো এর মধ্যে অন্যতম এখানকার মানুষের আন্তরিকতা আর সহৃদয়তা। রাজশাহী গেলে তাই এখানকার মানুষের আতিথেয়তা আপনাকে মুগ্ধ করবেই। এছাড়া রাজশাহীবাসীর জীবনযাপনের ধরণ বেশ সহজ-সরল ও অনাড়ম্বর। ‘শিক্ষানগরী’ হিসেবে পরিচিত এ জেলার মানুষের শিক্ষা সচেতনতাও বেশ প্রশংসনীয়। এ এলাকার মানুষের জীবন আবর্তিত হয় মূলত তিনটি বিষয়কে কেন্দ্র করে; আর সেগুলো হলো পদ্মা নদী, ফলের রাজা আম আর রেশম শিল্প। পদ্মাপাড়ের অববাহিকায় বাস করার ফলেই বোধহয় এখানকার মানুষ এমন নম্র ও সাধারণ। এ…