Archive

2021

Browsing

Reading Time: 3 minutes আগে একটা সময় ছিল যখন বাথরুম আর কিচেনকে অনেকটা আড়ালে আর অবহেলিত রাখা হতো। কালের প্রবর্তনে বর্তমানে বাকি ঘরগুলোর পাশাপাশি বাথরুম ও কিচেনও পাচ্ছে সমান প্রাধান্য। বরং, বাথরুমকে ঘিরে এসেছে আধুনিক সব স্টাইল আর ইন্টেরিয়র ডেকোর। গতানুগতিক বাথরুমের নকশা থেকে বেড়িয়ে এসেছে নানারকমের বাথরুম স্টাইল। গোসল করার বিষয়টি এখন কেবলই পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার গন্ডিতে নেই। মন ও শরীরকে সতেজ ও সুস্থ রাখতে গোসল করা মেডিটেশন হিসেবে কাজ করে।  গোসল। শরীরের ব্যথা বা মেজমেজে ভাব দূর করতে অনেকেই হট টাব থেরাপি অবলম্বন করে থাকে। সুতরাং গোসল এখন চিকিৎসারও একটি মাধ্যম। কর্মব্যস্ত দিন শেষে শান্তিময় গোসল করার জন্য বাথটাব বেশ চমৎকার একটি অনুষঙ্গ। বাজারে নানা ধরণের বাথটাব আগে থেকেই রয়েছে। চলুন তাহলে জানা যাক বেসিক কয়েকটি বাথটাব সম্বন্ধে! নানা ধরণের বাথটাব সম্বন্ধে জানতে পড়তে থাকুন।  ফ্রি স্ট্যান্ডিং বাথটাব ফ্রি স্ট্যান্ডিং বাথটাবগুলো দেয়ালের সাথে সংযুক্ত নয়। দেয়াল থেকে দূরে কেবল মেঝের সাথে সংযুক্ত থাকে বলে একে ফ্রি স্ট্যান্ডিং বাথটাব বলা হয়। এই বাথটাবের সুবিধা…

Reading Time: 4 minutes বিনিয়োগের জন্য একটা সময় স্টক, বন্ড এবং মিউচুয়াল ফান্ডের গুরুত্বই ছিল সবচেয়ে বেশি। যদিও এখনও বিনিয়োগের জন্য এই মাধ্যমগুলো বেশ পরিচিত। তবে বর্তমান সময়ের মার্কেট পরিচালনা করলে দেখা যাচ্ছে যে বিনিয়োগের জন্য প্রচলিত এই মাধ্যমগুলোর পাশাপাশি অন্যান্য লাভজনক মাধ্যমও বেশ কার্যকরী ভূমিকা পালন করছে। বিশেষ করে দীর্ঘমেয়াদী বিনিয়োগের ক্ষেত্রে এর প্রভাব লক্ষণীয়। এর মধ্যে বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য একটি মাধ্যম হচ্ছে রিয়েল এস্টেট সেক্টরে বিনিয়োগ। তবে যখনই তরুণ প্রপার্টি বিনিয়োগকারীদের কথা উঠে আসে, তখন দেখা যায় ভিন্ন একটা চিত্র। কেননা তরুণদের ক্ষেত্রে রিয়েল এস্টেট সেক্টরে বিনিয়োগ পূর্বে অতটা জনপ্রিয় হয়ে না উঠলেও, সাম্প্রতিক সময়ে আগের চেয়ে ভিন্ন চিত্র লক্ষ্য করা যাচ্ছে। তরুণদের মধ্যে বিনিয়োগের আগ্রহ বাড়লেও, অনেকেই হয়তো জানেন না শুরুটা কীভাবে করবেন। আর তাই আজকের ব্লগে তরুণ প্রপার্টি বিনিয়োগকারীদের জন্য টিপস দেয়া হলও, যা তাদের বিনিয়োগের সিদ্ধান্তকে আরও সহজ করে তুলবে।    মার্কেট রিসার্চ রিয়েল এস্টেট সেক্টরে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে সবার প্রথম ধাপই হচ্ছে মার্কেট রিসার্চ। বাজার সম্পর্কে পর্যাপ্ত ধারণা এবং জ্ঞান…

Reading Time: 4 minutes একটি বাড়ির সৌন্দর্য বাড়িয়ে তুলতে সিঁড়ির বেশ ভূমিকা থাকে। সিঁড়ি নির্মাণের ক্ষেত্রে এর আকার, আকৃতি এবং ডিজাইনের ভিন্নতা সম্পর্কে জানা এবং সে অনুযায়ী সিঁড়ি নির্মাণের পরিকল্পনা করা তাই অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বাড়ি নির্মাণের ক্ষেত্রে অন্যসব বিষয়ের সাথে সঠিক ডিজাইনের সিঁড়ি নির্মাণ করা এবং এর জন্য ঘরের সঠিক জায়গাটি বেছে নেয়াও জরুরি। বিভিন্ন ডিজাইনের সিঁড়ির মধ্যে রয়েছে অনেক ধরনের পার্থক্য, রয়েছে বেশ কিছু সুবিধা-অসুবিধা। তবে চলুন আজকের ব্লগ থেকে বিভিন্ন ধরনের সিঁড়ি সম্পর্কে কিছুটা ধারণা নেয়া যাক। আর এর সাথে ডিজাইন এবং আকৃতি ভেদে নির্মাণ করা সিঁড়িগুলোর কোনটার কী ধরনের অসুবিধা এবং সুবিধা রয়েছে, সে সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চলুন বিভিন্ন ধরনের সিঁড়ি সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক।   স্ট্রেইট সিঁড়ি নাম শুনেই যেমনটা বোঝা যাচ্ছে, এ ধরনের সিঁড়ি সোজা চলা ছাড়া অন্য কোন দিকে যাওয়ার জন্য কোন ধরনের দিক নির্দেশনা দিবে না। সিঁড়ির এই ডিজাইনটি বেশ কমন বলেই রেসিডেন্সিয়াল এবং কমার্শিয়াল দুই ধরনের ভবনেই স্ট্রেইট বা সোজা ডিজাইনের সিঁড়ির ব্যবহার লক্ষ্য করা যায়। স্ট্রেইট…

Reading Time: 4 minutes বন্ধুবান্ধব বা পরিবারের সাথে মজাদার খাবার খাওয়া এবং চমৎকার কিছু মুহূর্ত কাটানোর জন্য প্রায়শই আমরা রেস্টুরেন্টের খোঁজে থাকি। বিশেষ করে যারা ভোজনরসিক, তারা চমৎকার ইন্টেরিয়র ডিজাইন করা নিত্যনতুন রেস্টুরেন্ট এবং সাথে মুখরোচক খাবারের সন্ধানে থাকেন প্রায় প্রতিনিয়তই। যেন ব্যস্ততার মাঝে একটু সময় পেলেই ঘুরে বেড়াবেন শহরের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে মজাদার খাবারের খোঁজে। আর তাই এরই ধারাবাহিকতায় ভোজনরসিকদের এখন আর গুলশান, বনানী বা ধানমন্ডিতে যেতে হচ্ছে না। বরং উত্তরার রেস্টুরেন্ট গুলোতেই পাচ্ছেন মজাদার খাবার, চমৎকার ইন্টেরিয়র। দেশি-বিদেশি মেন্যুতে সাজানো উত্তরার রেস্টুরেন্ট গুলো এ কারণেই রয়েছে অনেকের পছন্দের তালিকায়। তবে চলুন আজকের ব্লগে উত্তরার রেস্টুরেন্ট গুলো থেকে কিছুটা সময়ের জন্য হলেও ঘুরে আসা যাক।      আজো আইডিয়া স্পেস  মজাদার খাবার যেখানে আছে সেখানে ভোজনরসিকদের আনাগোনা হবে না, এমনটা তো হতেই পারে না। গল্প-আড্ডা, মিটিং কিংবা গল্পের বই হাতে নিজের সাথে কিছুটা সময় কাটানোর জন্য আজো আইডিয়া স্পেস এমনই দারুণ একটা জায়গা।  বাদামী এবং কমলা রঙের থিমে বেশ ভিন্ন একটা লুকে সাজানো…

Reading Time: 4 minutes যেকোনো ধরনের দুর্ঘটনা মোকাবেলা করতে সর্বদা তৎপর থাকা সেবা প্রদানকারী সংস্থার মধ্যে ফায়ার সার্ভিস স্টেশনগুলো অন্যতম। শুধুমাত্র আগুন নেভানোর জন্যই যে ফায়ার স্টেশনগুলো কাজ করে, তা কিন্তু নয়। বরং, যেকোনো ধরনের দুর্ঘটনা মোকাবেলায় ফায়ার স্টেশনগুলো সক্রিয়ভাবে কাজ করে। আগুনের দ্বারা ক্ষয়ক্ষতি এবং সড়ক দুর্ঘটনা মোকাবেলার পাশাপাশি রেসিডেন্সিয়াল এবং কমার্শিয়াল ভবনগুলোতে ফায়ার কোড এবং প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা প্রয়োগের জন্যও ফায়ার সার্ভিস কাজ করে থাকে।  বড় ধরনের দুর্ঘটনা নিয়ন্ত্রণ আনতে অনেক সময়ই এক স্টেশন অন্যান্য স্টেশনগুলোর সহায়তা নিয়ে থাকে। এমনকি অনেক সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনার ক্ষেত্রে, দুর্ঘটনাস্থলের কাছেই যে ফায়ার স্টেশনটি থাকে দ্রুত তাদের সহায়তা নেয়ার জন্য হলেও ফায়ার স্টেশনগুলোর সার্ভিসিং এরিয়া এবং যোগাযোগের নম্বর জেনে রাখা আবশ্যক হয়ে পড়ে। আর তাই প্রতিটি ফায়ার স্টেশনের অবস্থান সম্পর্কে প্রত্যেকেরই ধারণা থাকা প্রয়োজন। এক্ষেত্রে আপনাদের জন্য কাজটি আরও সহজ করে দিতে, আজকের ব্লগে ঢাকার ফায়ার স্টেশন এর লোকেশন, সার্ভিস এরিয়া এবং যোগাযোগের নম্বরের একটি তালিকা দেয়া হল।  সিদ্দিক বাজার ফায়ার সার্ভিস এবং সিভিল ডিফেন্স স্টেশন…

Reading Time: 5 minutes বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে রিয়েল এস্টেট সেবাকে প্রশংসনীয় একটি পর্যায়ে নিয়ে এসেছে বিপ্রপার্টি। বাসা ভাড়া নেয়া বা ক্রয়, বিক্রয়ের মত জটিল আর সময়সাপেক্ষ বিষয়গুলো এখন কেবল সহজই হচ্ছে না বরং এসেছে ওয়েবসাইট আর অ্যাপের মাধ্যমে হাতের মুঠোয় আর এই সবকিছুই হয়েছে বিপ্রপার্টির কল্যাণে। ঘরে বসেও যে প্রপার্টি ভিউ কিংবা খবরাখবর নেওয়া যায় এমন কনসেপ্টের সাথে সাধারণ মানুষকে পরিচিত করিয়েছে গ্লোবাল রিয়েল এস্টেট কোম্পানি বিপ্রপার্টি। যারা অনলাইনে সেবা নিতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে না তাদের জন্য তৈরি করা হয়েছে ২টি অফিস ও ৮টি মার্কেটপ্লেস, যেখানে আপনি প্রপার্টি সংক্রান্ত সকল সার্ভিস একসাথেই পাবেন। আর এই অফিস ও মার্কেটপ্লেস গুলো ঢাকা বা ঢাকার বাইরে কোথায় আছে সেই তথ্য জানাতে আজকের ব্লগ লেখা।  বিপ্রপার্টি অফিস ও মার্কেটপ্লেসের ঠিকানা জানতে পড়তে থাকুন।  হেড অফিস  গুলশান ১ এর লোটাস কামাল টাওয়ারে রয়েছে বিপ্রপার্টির কর্পোরেট অফিস। বিপ্রপার্টির প্রধান কার্যালয় এটি। এই অফিস থেকে বিপ্রপার্টির দাপ্তরিক কাজগুলো পরিচালিত হয়। রয়েছে হিউম্যান রিসোর্স ডিপার্টমেন্ট, অ্যাকাউন্টস এন্ড ফাইনান্স, মার্কেটিং, অপারেশন ও কাস্টমার কেয়ার সার্ভিস…

Reading Time: 5 minutes কর্মব্যস্ত দিনশেষে ঘরের যে জায়গাটিতে আমরা প্রথমেই নির্দ্বিধায় শরীর এলিয়ে দেই, সেটা হচ্ছে সোফা। আবার অনেকের কাছে, ছুটির দিনে সোফায় বসে সকালবেলার চায়ে চুমুক দেয়াটাই সবচেয়ে সুখের মুহূর্ত। সেজন্যই সোফা মানে নিছক বসার জায়গা নয়। একদিকে এর প্রভাব রয়েছে অন্দরসজ্জায়, অন্যদিকে এর গুরুত্ব রয়েছে সোফায় বসা মানুষগুলোর আনন্দ আর আরামপ্রদতায়। কারো কারো কাছে এটি রুচির পরিচায়ক, কারো কাছে আভিজাত্যের প্রতীক। আর তাই, ঘরের মানুষগুলোর প্রয়োজন, ফাংশনালিটি, নান্দনিকতা কিংবা ব্যক্তিগত পছন্দের উপরই নির্ভর করে কার জন্য কোন ধরনের সোফা অধিক মানানসই। বাংলাদেশে মূলত লেদার ও ফেব্রিক এই দুই রকমের সোফা নানা ডিজাইনে ও নানা ধরণে কিনতে পাওয়া যায়। কিন্তু লেদার নাকি ফেব্রিকের সোফা আপনি কোনটি নির্বাচন করবেন তা আপনাকেই নির্ধারণ করতে হবে। তবে, কোন বিষয়গুলোর উপর ভিত্তি করে আপনি আপনার ঘরের জন্য লেদার অথবা ফেব্রিকের মধ্য থেকে একটি পারফেক্ট সোফা বেছে নিতে পারবেন, তা জানাবো আজকের আর্টিকেলে।   রক্ষণাবেক্ষণ ফেব্রিকের সোফা মানেই এর প্রতি আপনাকে কিছুটা যত্নবান হতেই হবে। এ ধরনের সোফায়…

Reading Time: 6 minutes কাঠের আসবাবের রয়েছে আলাদা ঐতিহ্য। কাঠের আসবাবের সঠিক উপায়ে যত্ন নিলে বহুদিন সহজেই টিকে যায়। সময়ের সাথে এবং প্রতিদিনের ব্যবহারের ফলে কাঠের আসবাবে দাগ পড়ে যায় বা রঙ উঠে যায়। অনেক সময় ছোপ ছোপ দাগের কারণে নতুন আসবাব দেখতে বেশি পুরনো মনে হয়। কিন্তু, কাঠের এই একেকটি আসবাব তৈরি করতে যেমন সময়, শ্রম আর অর্থ লেগে যায়, তেমনি অনেকেই কাঠের আসবাবকে সহজে বাতিল করতে চায় না। তখনই দেখা যায় নতুন করে রঙ বা স্টেইন করিয়ে নেয়ার প্রয়োজন হয়। কাঠের এই আসবাবে ফিনিশিং দিতে বার্নিশ, তেল আর মোমের ব্যবহার হচ্ছে বহু আগে থেকেই। একটু রঙ বা স্টেইন দিলেই আসবাব হয়ে ওঠে চকচকে। কাঠের আসবাবে নতুনত্ব যোগ করতে স্টেইন বা কালার করার যেন কোন জুড়ি নেই।  কাঠের এই আসবাবগুলো বেশ দামী। একবার কিনলে সবারই উদ্দেশ্য থাকে অনেকদিন ব্যবহার করার। কিন্তু, সময়ের সাথে ইন্টেরিয়রে যোগ হতে থাকে একেক রকম ট্রেন্ড আর স্টাইল। তখন কিন্তু সময়ের সাথে তাল মেলাতে ইচ্ছা করে ভীষণ। এমন অবস্থায়…

Reading Time: 4 minutes কর্মব্যস্ত দিন শেষে পরিবারের সবার সাথে কথা বলা, আড্ডা দেয়া কিংবা কিছু মুহূর্ত কাটানোর জন্য সবচেয়ে পারফেক্ট জায়গাটি হল ডাইনিং রুম। খাবার খেতে খেতে সারাদিনের সব আলাপ চলে ডাইনিং টেবিলকে ঘিরে। আর তাই বলাই যায় প্রত্যেকটি বাসার ডাইনিং টেবিলই যেন কতশত গল্পের আড্ডাখানা। ফ্যামিলি ডিনার, বন্ধুদের সাথে গল্প কিংবা খুনসুটি; এসব কিছুর সাক্ষী থাকে বাসার ডাইনিং টেবিল। স্মার্টফোন এবং গেজেটের এই যুগে পরিবারের সবার একসাথে বসে গল্প-আড্ডার দারুণ এক জায়গা হয়ে আছে এই ডাইনিং টেবিল। কথোপকথন এবং মজাদার সব খাবার খাওয়ার সাথে মুহূর্তগুলো যেন আরও বিশেষ হয়ে উঠে এই জায়গাটিকে ঘিরে। আর তাই তো ঘর সাজানোর জন্য বিভিন্ন রকমের ডাইনিং টেবিল থেকে বেছে নিতে হবে আপনার এবং পরিবারের যেমনটি পছন্দ!  ম্যাটেরিয়াল এর উপর নির্ভর করে ডাইনিং টেবিল বিভিন্ন রকমের হয়ে থাকে। আর তাই আজকের ব্লগে বিভিন্ন রকমের ডাইনিং টেবিল এর একটি তালিকা দেয়া হল। তবে চলুন  ডাইনিং টেবিলের ধরন সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক।  কাঠের ডাইনিং টেবিল  ক্ল্যাসিক ডিজাইনের…

Reading Time: 5 minutes দুর্গাপূজা যতোটা না সামাজিক ও ধর্মীয় উৎসব তার থেকে অনেক বেশি বাঙালির আনন্দ আর উদযাপনের উপলক্ষ্য। অন্তত আমাদের দেশের আবহমানকাল ধরে প্রবাহিত বাঙালি সংস্কৃতি তাই বলে। তবে, দুর্গা পূজা মানেই কেবল রঙিন উৎসব আর ঢাকের আওয়াজ নয়। সনাতন ধর্মমতে, ‘ভালো সবসময় মন্দের উপর বিজয়ী’ এই প্রতিপাদ্যকে স্মরণ করে দিতেই প্রতি শরতে মহালয়ার মধ্য দিয়ে ফিরে আসে শুভ শারদীয়া, আবির্ভাব ঘটে দেবী দুর্গার। ষষ্ঠীর দিন থেকে দেবী দুর্গার এই আবির্ভাবকে ঘিরে মূল উৎসব আর পূজা উদযাপিত হয়। পরবর্তী তিন দিন দেবী দুর্গা, লক্ষ্মী এবং সরস্বতী, এই তিনরূপসহ আরো অসংখ্য রূপে পূজিত হন মহামায়া।  তার আগমন মানেই উদযাপনের সব থেকে বড় উপলক্ষ্য। পরিবেশে তখন যেন নতুন সুরের দ্যোতনা সৃষ্টি হয়। জীবনে যুক্ত হয় আরো কিছু নতুন রঙ। লাল পাড় সাদা শাড়ি, কপালে সিঁদুর আর দুর্গা প্রতিমার মুখ, মনে করিয়ে দেয় বাঙালির চিরন্তন সংস্কৃতির কথা। তার অনুষঙ্গ হিসেবে আরো যোগ হয় শাঁখের আওয়াজ, দেয়াল ও মেঝেজুড়ে রঙ বেরঙের আল্পনা,  কিংবা ঢাকের তালে তালে…