Archive

2022

Browsing

Reading Time: 4 minutes আপনি যখন প্রপার্টির মালিক, তখন প্রপার্টির দেখাশোনা, রক্ষণাবেক্ষণের মতো বিষয়গুলোর দায়িত্বও থাকে আপনারই উপর। বিশেষ করে একটি বাড়ি নির্মাণের পর, বাড়ির প্রতিটি ক্ষুদ্র থেকে ক্ষুদ্র বিষয় পর্যবেক্ষণ এবং এর স্থায়িত্ব নিশ্চিত করার দায়িত্ব মূলত প্রপার্টির মালিকের উপরই থাকে। এমনকি প্রপার্টি ভাড়া দেয়ার পর ভাড়াটিয়া উক্ত প্রপার্টির দেখভাল সুনির্দিষ্টভাবে করছে কিনা সে বিষয় সম্পর্কেও পূর্ণ ধারনা রাখা আবশ্যক। কেননা, প্রপার্টির মেইনটেন্যান্স সঠিকভাবে করলেই উক্ত প্রপার্টি দীর্ঘসময় স্থায়ী থাকবে। আর তাই প্রপার্টি মেইনটেন্যান্স টিপস সম্পর্কে জেনে নিন আজকের ব্লগ থেকে। লগ বুক (অতিথিদের তথ্য সংরক্ষণ করে রাখার জন্য) প্রপার্টির বাসিন্দা ছাড়া, উক্ত প্রপার্টির ভেতর বহিরাগত যারাই আসছেন বা আসবেন, তাদের যথাযথ তথ্য লিখে রাখার জন্য একটি লগ বুক থাকা অত্যন্ত জরুরি। বাড়ির যে দারোয়ান থাকবেন, তার দায়িত্ব হবে অতিথি থেকে শুরু করে প্রপার্টির ভেতর যারাই প্রবেশ করবে তাদের তথ্য এই লগ বুকে লিখে রাখা এবং যে অ্যাপার্টমেন্টে তারা যাবেন, ইন্টারকমের মাধ্যমে তা তাদের জানিয়ে দেয়া। অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যায় বাড়ির দারোয়ান এ…

Reading Time: 3 minutes প্রপার্টিতে বিনিয়োগ করা বরাবরের মতোই বেশ লাভজনক একটি সিদ্ধান্ত। বর্তমান সময়ে রিয়েল এস্টেট ব্যবসা যখন তুঙ্গে, তখন অনেকেই প্রপার্টিতে বিনিয়োগের ব্যাপারে আগ্রহী হয়ে উঠছেন। বিশেষ করে বাড়ি নির্মাণের ঝামেলা এড়াতে অনেকেই সরাসরি রেডি ফ্ল্যাট কিনছেন। বাড়ি নির্মাণের জন্য ব্যয়ের পরিমাণটা যেহেতু অনেক বেশি হয়, তাই বাড়তি অর্থ জোগাড় করা সহ পুরো প্রক্রিয়াটি বেশ ব্যায়বহুল মনে করেন অনেকেই। এক্ষেত্রে কন্সট্রাকশন লোন হতে পারে আপনার জন্য দারুণ এক সমাধান। জমির মালিকানা থাকার শর্তে বিভিন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠানে যথাযথভাবে আবেদনের মাধ্যমে আপনি কন্সট্রাকশন লোন পেতে পারেন খুব সহজে।         কন্সট্রাকশন লোন কী?  কন্সট্রাকশন লোন বিষয়ে বিস্তারিত জানার আগে চলুন জেনে নেই কন্সট্রাকশন লোন কী এবং কোন ক্ষেত্রে আপনি এই লোনের জন্য আবেদন করতে পারবেন। কোন বাড়ি নির্মাণের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত উক্ত বাড়ি নির্মাণ বাবদ খরচের জন্য স্বল্পমেয়াদে যে আর্থিক সহায়তা বা লোনের জন্য আবেদন করা হয়, সাধারণ অর্থে এটিই কন্সট্রাকশন লোন হিসেবে পরিচিত। জমি কেনা, উক্ত জমিতে বাড়ি নির্মাণের পরিকল্পনা, অনুমতি…

Reading Time: 2 minutes নিজের একটা বাড়ি হবে, এমন স্বপ্ন কার না থাকে। নিজের পছন্দমত ডিজাইনে সাজিয়ে নিয়ে যে জায়গাকে ঘিরে আমাদের সব স্বপ্ন বাসা বাঁধবে নতুন করে। ঢাকা শহরের মাঝে চাহিদামত এমনই একটি জায়গা খুঁজে পাওয়া অনেক ক্ষেত্রেই বেশ চ্যালেঞ্জিং হয়ে যায়। যেহেতু প্রপার্টিতে বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত বেশ বড় একটি বিষয়, তাই মার্কেট যাচাই-বাছাই করে, সুযোগ-সুবিধা সহ বিভিন্ন বিষয়াদি পর্যালোচনা করে তবেই প্রপার্টিতে বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত নেয়া উচিত। এক্ষেত্রে বিপ্রপার্টির ডাটাবেজে থাকা অসংখ্য ভেরিফায়েড প্রপার্টি থেকে আপনি আপনার পছন্দমত প্রপার্টিটি কিনতে পারছেন খুব সহজে। তবে চলুন, বিপ্রপার্টির তালিকা থেকে আগস্ট ২০২২ এর সেরা প্রপার্টি সমূহ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জেনে নেয়া যাক।  বনানীতে ২,১৪১ বর্গফুটের চমৎকার অ্যাপার্টমেন্টটি  বিক্রয়ের জন্য প্রস্তুত বসবাসের জন্য ঢাকার জনপ্রিয় এলাকাগুলোর মধ্যে বনানী অন্যতম। কমার্শিয়াল এই এলাকায় ২,১৪১ বর্গফুটের ৩ বেডরুম এবং ৪ বাথরুমের মাঝারি সাইজের এই অ্যাপার্টমেন্টে আপনি বসবাসের জন্য সকল ধরনের সুযোগ সুবিধাই পাচ্ছেন। ফ্যামিলি লিভিং এর জন্য ডিজাইন করা চমৎকার এই অ্যাপার্টমেন্টে খোলামেলা এটাচড ব্যালকনি এবং বেশ বড় জানালা…

Reading Time: 3 minutes দিনের একটা বড় অংশ আমাদের অফিসেই কেটে যায়। মাঝে কিছু সময়ের লাঞ্চ বিরতি, অতঃপর আবার সেই ডেস্ককেই ফিরে আসা। আর তাই দিনের গুরুত্বপূর্ণ ৮ থেকে ৯ ঘন্টা যেখানে কাটানো হয়, সে জায়গাটা নিজের মতো করে সাজিয়ে নিলে সারাদিন মন যেমন ফুরফুরে থাকবে, তেমনি পরিপাটি জায়গাটি আপনাকে কাজের প্রতি আরও আগ্রহী করে তুলবে। অফিসের ছোট স্পেসটি যেন বোরিং না লাগে, সে জন্য সুন্দর করে সাজিয়ে নিন পছন্দের কিছু জিনিস দিয়ে।  আর তাই আপনার জন্য কাজটি কিছুটা সহজ করতে অফিস ডেস্ক সাজানোর টিপস নিয়ে চলুন কিছুটা ধারনা নেয়া যাক।       স্টেশনারি অরগানাইজার বাস্কেট অফিস ডেস্ক সাজানোর টিপস এর মধ্যে সবার প্রথমই চলে আসবে স্টেশনারি অরগানাইজ করে রাখার বিষয়টি। কেননা, ডেস্কে যদি সব কিছু এলোমেলো ভাবে ছড়ানো থাকে, তবে তা দেখতে খুব গ্যাঞ্জাম মনে হবে। এমনকি কাজ করার সময় তৎক্ষণাৎ কোন কিছুই হাতের কাছে পাওয়া যাবে না। আর তাই একটি স্টেশনারি বাস্কেট কিনে নিয়ে সেখানে স্ট্যাপ্লার, পেপার ক্লিপ, পেন, পেন্সিল, রাবার, কাঁচির মতো প্রয়োজনীয়…

Reading Time: 3 minutes প্রপার্টি কেনা বেচার প্রক্রিয়ায়, শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত যত রকমের আইনি জটিলতা, এর প্রত্যেকটির সঠিক সল্যুশন রয়েছে বিপ্রপার্টি লিগ্যাল সার্ভিস এ। আপনি ক্রেতা হোন বা বিক্রেতা, যে কোনো লিগ্যাল সমস্যায় সব থেকে কম সময়ে সহজ সমাধান খুঁজে পাবেন এখানেই।  ইতোমধ্যেই, মিউটেশন, সেল পারমিশন, ফরেইন পাওয়ার অব অ্যাটর্নি, ভেটিং ও সাকসেশন সার্টিফিকেট সহ নানাবিধ আইনি প্রয়োজনে অসংখ্য গ্রাহক বিপ্রপার্টির লিগ্যাল সার্ভিস নিয়েছেন এবং তাদের সন্তুষ্টির কথা জানিয়েছেন। আপনিও যদি ঝামেলাহীনভাবে প্রপার্টির সঠিক সল্যুশন পেতে আগ্রহী হন, তাহলে কল করুন ০৯৬১২১১০০১১ নম্বরে অথবা লিংকে ক্লিক করে ফরমটি পূরণ করুন। বিপ্রপার্টি লিগ্যাল সার্ভিস কেন নেবেন ?  প্রপার্টির লিগ্যাল ইস্যুতে গ্রাহকদের সেরা সার্ভিসটি দিতে বিপ্রপার্টিতে রয়েছে অত্যন্ত দক্ষ ও অভিজ্ঞ একটি  লিগ্যাল টিম। যারা সম্পূর্ণ স্বচ্ছতার সাথে ল্যান্ড থেকে শুরু করে অ্যাপার্টমেন্ট যে কোনো প্রপার্টির আইনি সমস্যার সল্যুশন দিয়ে থাকেন।  তাই, ঝামেলাহীনভাবে সম্পূর্ণ স্বচ্ছতা ও নিরাপত্তার সাথে প্রপার্টির আইনি প্রক্রিয়াগুলো সম্পন্ন করতে, আপনাকে আসতে হবে বিপ্রপার্টিতে লিগ্যাল সার্ভিস এ।    কী কী সার্ভিস পাচ্ছেন?  …

Reading Time: 3 minutes প্রপার্টি কেনার পরিকল্পনা করা মানেই বিশাল বড় অংকের বিনিয়োগ। তবে বিনিয়োগের এই বিষয়টি কিন্তু এখানেই শেষ না। বরং, প্রপার্টির ইন্টেরিয়র ডেকোরের জন্য প্রয়োজন হয় দারুণ কোন আইডিয়া কিংবা সল্যুশন এর। এক্ষেত্রে অনেক সময় আমরা নিজেরাই ইন্টেরিয়র ডিজাইনের প্ল্যানিং করে থাকি। তবে প্রপার্টির অবস্থান, ধরন এবং আনুষঙ্গিক বিষয় সমূহ সম্পর্কে সঠিক ধারণা না থাকলে ইন্টেরিয়র ডিজাইন এর সম্পূর্ণ প্রক্রিয়াটি কিন্তু বিফলে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তবে এক্ষেত্রে দক্ষ ইন্টেরিয়র টিমের সহায়তায় ইন্টেরিয়র ডেকোরের সম্পূর্ণ কাজটি বেশ চমৎকার একটি রূপ নিতে পারে। তবে চলুন জেনে নেয়া যাক, ইন্টেরিয়র সল্যুশনে বিপ্রপার্টি ইন্টেরিয়র টিম কীভাবে গ্রাহকদের সহায়তা দিয়ে আসছে।  প্রপার্টির ধরন বুঝে ইন্টেরিয়র সল্যুশন  প্রপার্টি হতে পারে রেসিডেন্সিয়াল কিংবা কমার্শিয়াল, ইন্টেরিয়র ডিজাইন করার ক্ষেত্রে তাই প্রপার্টির ধরন, আয়তন ইত্যাদির উপর অনেকাংশেই নির্ভর করে ইন্টেরিয়র এর ডিজাইন কেমন হবে। অনেক ক্ষেত্রে ইন্টেরিয়র ডিজাইনিং নিয়ে পরিপূর্ণ ধারণা না থাকার ফলে পরবর্তী সময়ে অনেক ধরনের ভুলভ্রান্তি দেখা দেয়। এতে করে পুনঃডিজাইন এর জন্য বাড়তি খরচের পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের ঝামেলারও…

Reading Time: 3 minutes অ্যাপার্টমেন্টের ইন্টেরিয়র ডিজাইন করার ক্ষেত্রে ছোট-বড় অনেক বিষয়ই বিবেচনায় রাখতে হয়। ধরুন, ইন্টেরিয়র ডিজাইন করার জন্য কোন নির্দিষ্ট স্টাইল হয়তো বেছে নিলেন, কিন্তু সে স্টাইলটি যদি আপনার ড্রইং রুম কিংবা লিভিং রুমের জন্য মানানসই না হয়, তবে কিন্তু ডিজাইনিং-এ খুব বেশিদূর এগিয়ে না যাওয়াই উত্তম। আর এ বিষয়গুলো আপনি তখনই ভালোভাবে বুঝতে পারবেন, যখন আপনি একজন ইন্টেরিয়র এক্সপার্টের সহায়তা নিবেন এবং তার পরামর্শ অনুযায়ী ইন্টেরিয়র ডিজাইনের জন্য রুমের ধরন, আকৃতি বুঝে স্টাইলটি বেছে নিবেন। তবে শুধু ইন্টেরিয়র স্টাইলই নয়, দেয়ালের রঙ, পর্দা নির্বাচন, আসবাবপত্র কেনা ইত্যাদি আনুষাঙ্গিক বিষয়ও কিন্তু বেশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। তবে চলুন আজকে সরু লিভিং স্পেস ডিজাইন করার ক্ষেত্রে যে ৫টি বিষয় অবশ্যই বিবেচনায় রাখা জরুরি, সে সম্পর্কে জেনে নেই এবং ইন্টেরিয়র ডিজাইন করার ক্ষেত্রে তা অনুসরণ করি।  হালকা শেডের দেয়ালের রঙ নির্বাচন করি দেয়ালের রঙ নির্বাচনের ক্ষেত্রে বরাবরের মতোই হালকা শেডের রঙগুলোকে বেছে নেয়া উচিত। অনেকে আবার একেক রঙে ঘরের একেক রুম রাঙাতে পছন্দ করেন।…

Reading Time: 4 minutes বাসার কিচেন এবং বাথরুমের সিংকের জন্য ফসেট কিনবেন ভাবছেন? গতানুগতিক ডিজাইন ছাড়াও, ব্যবহার এবং বিভিন্ন ধরনের কল এর ডিজাইন থেকে বেছে নিতে পারেন আপনার যেমনটি প্রয়োজন। ফসেট আমরা কোনটাকে বলছি, জানেন নিশ্চয়? ফসেট মূলত কল, পানি প্রবাহের একটি মাধ্যম। ছোট-বড়, গরম কিংবা ঠান্ডা পানির ব্যবস্থা থাকা বিভিন্ন ধরনের কল রয়েছে বাজারে। মেটাল এবং প্লাস্টিক এর ধরন ও ডিজাইন ভেদে বাজারে সহজলভ্য বিভিন্ন ধরনের কল সম্পর্কে চলুন কিছু ধারনা নেয়া যাক।   বল ফসেট  কিচেন সিংকে ব্যবহৃত কল বা ফসেট এর মধ্যে সবচেয়ে পরিচিত ডিজাইন হচ্ছে বল ফসেট। বল ফসেট সাধারণত সিঙ্গেল হ্যান্ডেল এর হয়ে থাকে। রান্নাঘরের বেসিন এবং বাথরুমে ব্যবহৃত সবচেয়ে কমন ডিজাইনের যে ফসেটটি আমরা দেখে থাকি, মূলত সেটিই হল বল ফসেট। এর উপরের অংশে থাকা গোলাকৃতির অংশটি ঘুরিয়েই মূলত কলটি ব্যবহার করা হয়। বাংলাদেশে এই ডিজাইনের কলই সবচেয়ে সহজলভ্য। সিঙ্গেল হ্যান্ডেল ফসেট   সিঙ্গেল হ্যান্ডেল ফসেট এর বিশেষত্ব হলো এটি একটি সিঙ্গেল হ্যান্ডেলের মাধ্যমে পরিচালিত হয়। এতে ডানদিক থেকে বামদিকে…

Reading Time: 2 minutes বহুল প্রতীক্ষিত পদ্মা সেতুর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখবে, তা খুব সহজেই অনুমেয়।  এর মধ্য দিয়ে শুধুমাত্র রাজধানী ঢাকার যোগাযোগ ব্যবস্থা গতিশীল হতে যাচ্ছে তাই নয়, এর ফলে সামগ্রিকভাবে প্রসারিত হতে যাচ্ছে দেশের ব্যবসা-বাণিজ্যের খাতটি।  আর এ কারণেই পদ্মা সেতুর সংযোগ এর মাধ্যমে ঢাকার সাথে যুক্ত হওয়া ২১টি জেলার মানুষ এখন স্বপ্ন দেখছে এক উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ এর।  সবচেয়ে বড় কথা, পদ্মা সেতুর সংযোগ এর মাধ্যমে বাংলাদেশ যুক্ত হয়েছে এশিয়ান হাইওয়ের সঙ্গে। ফলে, অর্থনীতির পাশাপাশি বাংলাদেশের গোটা দক্ষিণাঞ্চল সাক্ষী হতে যাচ্ছে এ অঞ্চলের বাসিন্দাদের কর্মসংস্থান বৃদ্ধির। উল্লেখ্য যে, খুলনা বিভাগের খুলনা, বাগেরহাট, যশোর, সাতক্ষীরা, নড়াইল, কুষ্টিয়া, মেহেরপুর, চুয়াডাঙ্গা, ঝিনাইদহ ও মাগুরা এবং বরিশাল বিভাগের বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, পটুয়াখালী, বরগুনা ও ভোলা এবং ঢাকা বিভাগের গোপালগঞ্জ, ফরিদপুর, মাদারীপুর, শরীয়তপুর ও রাজবাড়ী সহ দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মোট ২১টি জেলা এখন পদ্মা সেতুর সংযোগ সুবিধা উপভোগ করবে।   নিচের ইনফোগ্রাফিকটির মাধ্যমে দেখে নিন পদ্মা সেতুর সাথে সংযুক্ত এলাকাগুলো-  পদ্মা সেতুর সুবাদে দক্ষিণাঞ্চলের…

Reading Time: 3 minutes বলা হয়, দেশের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনের চাবিকাঠি পদ্মা সেতু। কিন্তু শুধুই কি অর্থনীতি? শুধুই কী দক্ষিণ পূর্বাঞ্চলের মানুষ? নাকি এর প্রভাব পড়ছে রাজধানী ও এর আশেপাশের আবাসন খাতেও? আর পরিবর্তন আনতে যাচ্ছে প্রপার্টি কেনা, বেচা ও ভাড়া সহ নানা দিকে! এটি নিঃসন্দেহে সত্যি যে, পদ্মা সেতুকে ঘিরে পুরো দক্ষিণাঞ্চলের ব্যবসা-বাণিজ্য ও অর্থনীতি আরো বেশি গতিশীল হচ্ছে। তবে, বিভিন্ন আর্থিক খাতের মত, পদ্মা সেতুর কারণে আবাসন খাত ও প্রভাবিত হচ্ছে নানাভাবে। বিস্তারিত জানতে পড়তে থাকুন আজকের আর্টিকেল।  প্রপার্টির মূল্য বৃদ্ধি  ঢাকার কাছেই অবস্থিত কেরানীগঞ্জ থেকে একেবারে মুন্সীগঞ্জের মাওয়া পর্যন্ত পদ্মা সেতুর কারণে আবাসন খাত এর ব্যাপক পরিবর্তন লক্ষ্য করা যাচ্ছে।  বিশেষ করে, এই অঞ্চলগুলোতে এখন ল্যান্ড প্রকল্পের জন্য সম্ভাবনা অনেক বেশি। পদ্মা সেতুর কারণে যোগাযোগ সহজ হয়েছে। কমেছে সময় ক্ষেপণের মাত্রা। তাই, সহজ যাতায়াত ব্যবস্থার কারণে, অসংখ্য শিল্প কারখানা গড়ে উঠতে যাচ্ছে সেতুর এপার ও ওপারের এলাকাজুড়ে। আর এ কথা তো বলারই অপেক্ষা রাখে না, শিল্প কারখানা যেখানে থাকবে, সেখানেই বাড়বে…