প্রপার্টি ক্রয়ের ধাপসমূহ

সহস্রাধিক লিস্টিং থেকে বেছে নিন আপনার স্বপ্নের আবাস

১.

বিপ্রপার্টিতে আপনার পছন্দের প্রপার্টি খুঁজে নিন

পছন্দের প্রপার্টি খুঁজে পেতে প্রথমেই বিপ্রপার্টির ওয়েবসাইটে লগ ইন করুন। সার্চ অপশনটি ব্যবহার করে আপনার পছন্দের লোকেশন, অন্যান্য প্রয়োজনীয় তথ্য ও আনুমানিক বাজেটের ঘরগুলি পূরণ করুন। বিপ্রপার্টি র ওয়েবসাইট স্বয়ংক্রিয়ভাবে আপনার দেয়া তথ্য অনুসারে বিভিন্ন অ্যাভেইলেবল প্রপার্টির নমুনা দেখাবে। সেখান থেকে ছবি, ভিডিও এমনকি ভার্চুয়াল ট্যুরের মাধ্যমে ঘরে বসেই বিভিন্ন প্রপার্টির বিস্তারিত ধারনা পাবেন আপনি।

২.

আমাদের কাস্টমার সার্ভিস প্রতিনিধির সহায়তা নিন

এবার আপনার পছন্দ করা এক বা একাধিক প্রপার্টি নিয়ে আমাদের কাস্টমার সার্ভিসের সাথে যোগাযোগ করুন। কাস্টমার সার্ভিসের সাথে যোগাযোগ করতে একটি ইমেইল কিংবা কলই যথেষ্ট। একজন কাস্টমার সার্ভিস প্রতিনিধি আপনার চাহিদা এবং বাছাইকৃত প্রপার্টি সম্পর্কিত তথ্য জানার পর তা বিপ্রপার্টির এক্সপার্টদের কাছে প্রেরণ করবেন। এখন থেকে একজন বিপ্রপার্টি এক্সপার্ট বাকি সময় আপনাকে প্রপার্টি সংক্রান্ত সকল পরামর্শ দিয়ে গাইড করবেন।

৩.

প্রপার্টি এক্সপার্টের সাথে আপনার কাঙ্খিত প্রপার্টি নিয়ে আলোচনা

এ পর্যায়ে আপনার চাহিদা, কি কারণে আপনি প্রপার্টি কিনতে চাচ্ছেন অথবা যে কোন প্রাসঙ্গিক তথ্য পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে জানতে এবং বাংলাদেশের রিয়েল এস্টেট নিয়ে আপনার সম্ভাব্য প্রশ্নের উত্তর দিতে একজন প্রপার্টি এক্সপার্ট আপনার সাথে যোগাযোগ করবেন। আপনার ক্রয়ক্ষমতা, পেমেন্ট মেথড ইত্যাদি সকল বিষয়ের উপর লক্ষ্য রেখে, সাধ এবং সাধ্যের মধ্যে সমন্বয় ঘটিয়ে সবচাইতে উপযুক্ত একটি প্রপার্টির মালিক যেন আপনি হতে পারেন সে বিষয়ে সকল দিকনির্দেশনা প্রদান করবেন আমাদের প্রপার্টি এক্সপার্ট।

৪.

প্রপার্টি নির্বাচন ও ভিউইং

বিপ্রপার্টির সেলস এক্সপার্ট, আপনার জন্য মানানসই কয়েকটি প্রপার্টি আলাদাভাবে বাছাই করবেন এবং তা আপনার বিবেচনার জন্য উপস্থাপন করবেন। প্রপার্টিগুলোর প্রতিটিই যথাযথভাবে আপনার জন্য আলাদা করা এবং এর কাগজপত্রগুলোও থাকবে যথাসম্ভব যাচাইকৃত। এরপর, একজন প্রপার্টি এক্সপার্ট আপনার শর্টলিষ্ট করা প্রপার্টিগুলো ভিউইং-এর ব্যবস্থা করবেন। প্রপার্টি ভিউয়িং এর সময় তিনি আপনাকে প্রপারটিগুলো সম্পর্কে বিশদভাবে অবহিত করবেন যেন প্রপার্টিগুলো সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে আপনি সবদিক থেকে আপনার জন্য সর্বোত্তম প্রপার্টি-টিই পছন্দ করতে পারেন।

৫.

অর্থনৈতিক পরামর্শ

প্রপার্টি কেনার সময় বাজেটে ঘাটতি পড়া এবং সেজন্য হাউজিং লোন স্কিমের ব্যবহার খুবই স্বাভাবিক একটি ব্যাপার। এমন পরিস্থিতিতে প্রপার্টি অ্যাডভাইজার আপনাকে একটি সম্পূরক ধারণা দিবেন সমসাময়িক ব্যাংক লোন এবং অন্যান্য অর্থনৈতিক বিষয় সম্বন্ধে। এ পর্যায়ে এসে আপনি চাইলে প্রপার্টি মালিকের সাথে আপনার পেমেন্ট মেথড নিয়ে আলোচনা করতে পারেন। একই সাথে প্রপার্টি রেজিস্ট্রেশনের খরচ, ট্যাক্স ইস্যু ইত্যাদি নিয়েও বিস্তারিত আলোচনা হবে এ সময়।

৬.

আইনগত পরামর্শ

পছন্দের প্রপার্টির দলিল পত্রের সত্যতা যাচাই অত্যন্ত প্রয়োজনীয় একটি বিষয়। বিপ্রপার্টি এক্ষেত্রেও অনন্য। প্রপার্টি ক্রয়ের সম্পূর্ণ প্রসেসে আপনি পাবেন আমাদের নিজস্ব লিগ্যাল টিমের সাপোর্ট। আমাদের লিগ্যাল অ্যাডভাইজার শুধু যে আপনার পছন্দের প্রপার্টির সকল আইনগত দিকের দেখভাল করবেন তাই নয়, ক্রেতা হিসেবে আপনার স্বার্থ যেন সম্পূর্নরূপে সংরক্ষিত হয় তাও নিশ্চিত করবেন।

৭.

প্রপার্টি হস্তান্তর

আপনি যখন আপনার পছন্দের প্রপার্টিটি কিনতে মানুষিক এবং অর্থনৈতিকভাবে প্রস্তুত বিপ্রপার্টি তখন নিম্নোক্ত চুক্তিপত্রসমূহ উপস্থাপন করবে। এই চুক্তিপত্রগুলি মূলত দুই ভাগে বিভক্ত, একটি “ত্রিপাক্ষিক চুক্তি” এবং অন্যটি “দ্বিপাক্ষিক চুক্তি”।
ত্রিপক্ষীয় চুক্তিঃ প্রপার্টি সংক্রান্ত সকল শর্তের সাথে ক্রেতা, বিক্রেতা এবং বিপ্রপার্টি তিন পক্ষের সম্মতি আছে এমন একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হবে। দ্বিপক্ষীয় চুক্তিঃ
প্রপার্টির সকল লেনদেন, দলিল পত্র এবং অ্যাপার্টমেন্ট হস্তান্তর সম্বন্ধে ক্রেতা এবং বিক্রেতার মধ্যে একটি লিখিত চুক্তি করা হবে।

৮.

আপনি এখন প্রপার্টির একজন গর্বিত মালিক

এইধাপে প্রপার্টি আপনার নামে রেজিস্টার করে আপনার নিকট হস্তান্তর করা হবে। সব জল্পনাকল্পনা শেষে আপনি এখন আপনার স্বপ্নের প্রপার্টির একজন গর্বিত মালিক!