প্রপার্টি বিক্রয়ের ধাপসমূহ

অসংখ্য ক্রেতার কাছে আপনার প্রপার্টি পৌছানোর সবচাইতে সহজ উপায়

১.

বিপ্রপার্টিকে আপনার চাহিদা জানানো

আমাদের দেশের বাস্তবতায় সম্পত্তি বিক্রি চাট্টিখানি কথা নয়। ক্রেতা কিংবা বিক্রেতা, উভয়ের জন্যই এটি অনেক বড় একটি সিদ্ধান্ত। অর্থনৈতিক ছাড়াও অনেক আবেগ এবং অন্যান্য হিসাব জড়িয়ে আছে এর সাথে। “আমার সম্পত্তির সর্বোচ্চ মূল্য কত?”, “আইনগত কোন কোন জটিলতা সম্পত্তি বিক্রির সাথে জড়িয়ে আছে?”, “আমার সম্পত্তির জন্য উপযুক্ত ক্রেতা কারা? তাদের কোথায় এবং কিভাবে পাবো?” - এমন হাজারটা প্রশ্ন মুহুর্তেই আপনার সামনে এসে দাঁড়াবে। আর এসবের উত্তর দেয়ার জন্য আছি আমরা, বিপ্রপার্টি। সম্পত্তি নিয়ে আপনার জিজ্ঞাসা কিংবা সমস্যা যাই হোক না কেন, সব প্রশ্নের উত্তর আছে আমাদের কাছে। আমাদের রিয়েল এস্টেট এক্সপার্টরা আপনার অপেক্ষাতেই আছেন। সম্পত্তি সম্পর্কিত সকল সমস্যার সমাধান পাওয়া যাবে তাদের সাথে যোগাযোগ করলেই।

২.

প্রপার্টির বিস্তারিত তথ্য সংগ্রহ

আমাদের সাথে যোগাযোগ করে এবং আমাদের এক্সপার্টদের সাথে কথা বলে যখন আপনি আপনার বেশিরভাগ প্রশ্নের উত্তর পেয়ে যাবেন এবং আমাদের সার্ভিস নেওয়ার ব্যাপারে সম্মতি জানাবেন, বিপ্রপার্টি তখন আপনার মালিকানাধীন সম্পত্তির সকল দরকারি তথ্য সংগ্রহ করবে। এসকল তথ্যের মধ্যে আছে আপনার সম্পত্তির বর্তমান অবস্থা, প্লেইসমেন্ট, সাইজ অথবা অন্যান্য প্রয়োজনীয় তথ্যাবলী । এসকল তথ্য-উপাত্ত আমাদেরকে আরো ভালভাবে আপনার অ্যাপার্টমেন্ট কিংবা বাড়ি সম্পর্কে বুঝতে এবং তার জন্য সঠিক ক্রেতা খুঁজে পেতে সাহায্য করে।

৩.

প্রপার্টির কাগজপত্র যাচাই-বাছাইকরণ

এরপরের ধাপে বিপ্রপার্টি আপনার সম্পত্তির সাথে জড়িত সকল কাগজপত্র সংগ্রহ করবে তা যাচাই-বাছাই করার উদ্দেশ্যে। কোন ক্রেতাই কাগজে ঝামেলা আছে এমন সম্পত্তির মালিক হতে চাইবেন না, আমাদের দেশের বাস্তবতায় যা আরও বেশি সত্য। জমি কিংবা বাড়ির কাগজে সামান্যতম সমস্যা আঁচ করতে পারলেও হয়ত একজন সম্ভাব্য ক্রেতা পিছু হটে যাবেন। তাই আপনার প্রপার্টির কাগজ, ক্রেতা নিজে দেখার আগেই আমাদের লিগ্যাল টিম যাচাই বাছাই করবে এবং তার সত্যতা সম্পর্কে নিশ্চিত হবে। যদি কাগজে কোন সমস্যা থেকেও থাকে, তা সমাধানের জন্য যথোপযুক্ত সাহায্য এবং দিক-নির্দেশনাও আমাদের টিম আপনাকে দেবে। বিক্রি করার ইচ্ছা এবং প্রয়োজন থাকার পরেও শুধুমাত্র দলিলের ত্রুটির কারণে কোন সম্ভাব্য ক্রেতা যেন হাতছাড়া না হয়ে যায় সেজন্য সকল প্রকার সাপোর্ট বিপ্রপার্টি প্রদান করতে বদ্ধ পরিকর।

৪.

বিক্রয়যোগ্য প্রপার্টির ছবি সংগ্রহ

লিগ্যাল ডকুমেন্টস পরীক্ষা নিরীক্ষা এবং সে সংক্রান্ত ধাপ পার করার পর ছবি সংগ্রহের উদ্দেশ্যে আমাদের টিম আপনার বাড়িতে উপস্থিত হবেন। অত্যাধুনিক প্রযুক্তির সহায়তায় তারা আপনার বাসার চমৎকার কিছু ছবি তুলে আনবেন। বিক্রয়যোগ্য যে কোন পণ্য প্রদর্শনে ছবির কোন তুলনা হয় না। সম্ভাব্য ক্রেতাগণের প্রাথমিক ধারনা এই ছবিগুলো দেখেই তৈরি হবে। আর বড় কোন বিনিয়োগের জন্য প্রাথমিক ধারনা (ফার্স্ট ইমপ্রেশন) অতীব গুরুত্বপূর্ণ।

৫.

বিপ্রপার্টির সাথে চুক্তিনামা

একটি চমৎকার এবং আকর্ষনীয় লিস্টিং-এর জন্য দরকারি যাবতীয় উপাদান উপরের ধাপসমূহে ইতোমধ্যেই সংগ্রহ করা হয়েছে। এখন শুধু বাকি বিপ্রপার্টির সাথে আপনার চুক্তির বিষয়টি। এই ধাপে কিছু ফর্মালিটিজ যেমন, বিপ্রপার্টির সার্ভিস চার্জ নিয়ে আলোচনা করা হয়ে থাকে। এখানে উল্লেখ্য যে, বিপ্রপার্টি শুধুমাত্র তখনই সার্ভিস চার্জ দাবি করবে যখন সফলভাবে আপনার সম্পত্তি বিক্রি হয়ে গিয়েছে এবং ক্রেতার সাথে আপনার সকল লেনদেন সম্পন্ন হয়েছে। দুপক্ষের মধ্যে একটি Memorandum of Understanding তথা চুক্তিনামা স্বাক্ষরের মাধ্যমে এই ধাপের নিষ্পত্তি ঘটবে।

৬.

আপনার প্রপার্টি এখন বিক্রির জন্য প্রস্তুত

এই ধাপে আপনার প্রপার্টির বিক্রি সংক্রান্ত সকল দায়িত্ব নিয়ে নেয় বিপ্রপার্টি। সম্ভাব্য ক্রেতাসাধারনকে আপনার প্রপার্টি দেখাতে নিয়ে যাওয়া থেকে শুরু করে তাদেরকে সব তথ্য দেয়া, পরিশেষে তা বিক্রি, সকল ব্যবস্থাই করবে বিপ্রপার্টি। যখনই কোন সম্ভাব্য ক্রেতা আপনার প্রপার্টির ব্যাপারে আগ্রহ প্রকাশ করবেন, আমরা তার সম্পর্কে খোজ খবর নেয়া আরম্ভ করব। সম্ভাব্য ক্রেতাকে নিয়ে পরের ধাপ, “প্রপার্টি ভিউয়িং”- এ যাবার আগেই আমরা তার অর্থনৈতিক অবস্থাসহ অন্যান্য প্রাসঙ্গিক বিষয় খতিয়ে দেখি যেন পরবর্তীতে উদ্ভব হওয়া যেকোন ঝামেলা এড়ানো যায়। এরপর পূর্ব নির্ধারিত কোন এক দিনে আমরা সম্ভাব্য ক্রেতাকে নিয়ে উপস্থিত হই আপনার বাসায় কিংবা যে প্রপার্টি-টি আপনি বিক্রি করতে চাচ্ছেন সেখানে। আমাদের দক্ষ ও প্রতিষ্ঠিত সেলস পার্সনরা সবসময়ই আপনার প্রপার্টিকে ক্রেতার কাছে আকর্ষণীয়ভাবে তুলে ধরার জন্য সদা প্রস্তুত।

৭.

সকল পক্ষের মধ্যে আইনগত সমঝোতা

এই ধাপে প্রপার্টি দেখার পর যদি ক্রেতার আগ্রহ থাকে তাহলে তিনি কোন মূল্যে আপনার সম্পত্তি কিনে নিতে রাজি আছেন তা বিপ্রপার্টিকে জানান। সেক্ষেত্রে বিপ্রপার্টি আপনাকে এই মূল্যের বিষয়ে অবহিত করবে এবং আপনার সম্মতি সাপেক্ষে পরবর্তী করনীয়র দিকে অগ্রসর হবে। এই ধাপের দুইটি আলাদা পর্যায় আছে। সেগুলো হল -
ক. একটি ত্রিপক্ষীয় চুক্তি যা আপনার, ক্রেতার এবং বিপ্রপার্টির মধ্যে স্বাক্ষরিত হবে। এতে চুক্তি নিয়ে সকল পক্ষের খুটিনাটি বিষয় উল্লেখ থাকবে।
খ. অপর চুক্তিটি হবে আপনার এবং ক্রেতার মধ্যে যেখানে কবে এবং কি উপায়ে মূল্য পরিশোধ করা হবে এবং সম্পত্তি হস্তান্তর হবে সে বিষয়গুলো স্পষ্টভাবে উল্লেখ থাকবে।

৮.

প্রপার্টি হস্তান্তর

আইনগত প্রক্রিয়া, চুক্তিনামা হয়ে গেলে সবার শেষ ধাপে বাকি থাকে প্রপার্টি হস্তান্তরের বিষয়টি। এর আগে পেরিয়ে আসা সকল ধাপ, বিক্রেতা এবং ক্রেতা উভয়ই যেন খুব সহজভাবে পার করতে পারেন, মধ্যস্থতাকারী হিসেবে বিপ্রপার্টি সব সময়ই তা নিশ্চিত করে। এবং সেসবের শুভ সমাপ্তি হয় এই ধাপে এসেই। বিক্রেতা হিসেবে এখানে পৌঁছাতে পারলে আপনাকে অভিনন্দন, বিপ্রপার্টির মাধ্যমে সফলতার সাথে আপনি আপনার সম্পত্তি বিক্রয় করতে পেরেছেন!

প্রপার্টি যোগ করুন