Reading Time: 3 minutes

ঘরের সাজে আভিজাত্য ফুটিয়ে তোলে এই বাহারি নকশার নানা কাঠের আসবাব। মূল্য বেশি হলেও টেকসই বেশি বলে অনেকেই কাঠের আসবাব কিনতে ঝুঁকছেন। কাঠের আসবাব একই সাথে রুচিসম্মত এবং নকশায় পরিপূর্ণ। বাংলার সকল বাহারি নকশা সযত্নে খোঁদাই করা থাকে এই আসবাবগুলোতে। এত বাহারি নকশার আসবাব দেখে না কিনে কিভাবে থাকা যায় বলুন? আমাদের ঘরের আসবাবও কিন্তু দীর্ঘমেয়াদী বিনিয়োগ। ঘরের আসবাব কেনার সময় গুরত্বপূর্ণ বেশ কিছু বিষয় ভেবে তবেই এমন আসবাব কেনা উচিত যেটা দীর্ঘ সময় ধরে টিকে থাকবে। আর টেকসই এর দিক থেকে কাঠের আসবাবের তুলনা নেই। কাঠের আসবাবের গুনগতমানের চেয়ে আরও একটি জরুরী উপায়ে এই আসবাবগুলোকে দীর্ঘস্থায়ী করা সম্ভব তা হল, সঠিকভাবে  কাঠের আসবাবের যত্ন নিয়ে। নিয়মিত যত্ন নিলে এই আসবাবগুলো বর্ধিত সময়ের চেয়ে আরও বেশি সময় ধরে টিকে থাকবে। চলুন জেনে নেই কিভাবে কাঠের আসবাবের যত্ন নিবেন।

কাঠের আসবাব
কাঠের আসবাব একই সাথে রুচিসম্মত এবং নকশায় পরিপূর্ণ

ধূলা মুক্ত করুন

প্রথমে যে কাজটা আপনাকে অবশ্যই করতে হবে তা হচ্ছে, দিনের একটা সময় নিয়ম করে প্রতিদিন আসবাবের গায়ে পড়া ধূলাবালু শুকনো নরম সুতির কাপড় দিয়ে মুছে নিতে হবে। এতে করে কাঠের আসবাবের গায়ে ধূলা জমে যাবে না। বেশি সময় ধরে ধূলা আসবাবের গায়ে পড়ে থাকলে জীবাণু বা ব্যাকটেরিয়া কাঠের ক্ষতি করতে পারে। এমন কি কাঠের পলিশও নষ্ট হয়ে যেতে পারে। রোদ বা বৃষ্টি থেকে আসবাবকে দূরে রাখতে হবে, নয়তোবা আসবাবের রঙ নষ্ট হয়ে যেতে পারে। এমন অবস্থা থেকে বাঁচতে ঘরের জানালায় ভারী পর্দা ব্যবহার করতে পারেন। ঘরের সাজে পর্দা বেশ চমৎকার কাজ করতে পারে।   

হিট স্টেন দূর করুন

কাঠের আসবাবে নিয়মিত ব্যবহৃত হয় ডাইনিং টেবিল। হয়তো সময় করে ডাইনিং টেবিল ব্যবহার করছেন কিন্তু যখনই ব্যবহার করছেন বয়ে যাচ্ছে কিন্তু ঝড়। খাবারের ঝোল, পানি কিংবা গরম খাবার রাখা হচ্ছে অনায়াসে। সেক্ষেত্রে দেখা যায় কম সময়ের মধ্যেই আসবাবের চেহারা বদলে গেছে একদম। এই সমস্যার অন্যতম কারণ হচ্ছে হিট স্টেন। এটা দূর করার উপায় বেশ সহজ, টুথপেস্ট ও বেকিং সোডা। এই মিক্সটি স্টেনের উপর ঘষে দিলেই দেখবেন দাগ উঠে গেছে। এছাড়াও টেবিলের দাগ বা স্পট তুলতে নরম কাপড়ে লেবুর রস দিয়ে ঘষে নিন। এরপর পানি দিয়ে হালকা করে মুছলেই দেখবেন দাগ উঠে গেছে।

ঘরোয়া উপায়ে পলিশ করুন

কাঠের আসবাবের উজ্জ্বলতা বা ঝিলিক ফিরিয়ে আনতে, অলিভ অয়েল ও লেবুর রস মিশিয়ে আসবাব মুছে নিতে পারেন দেখবেন আসবাব নতুনের মত চকচক করছে। ১ কাপ আলিভ অয়েল আর ১/৪ কাপ সাদা ভিনেগার একসঙ্গে মিশিয়ে নিন৷ আসবাব পরিষ্কার করে নেওয়ার পর এই মিশ্রণ একটা নরম কাপড়ে ঢেলে ভালো করে মুছে নিন৷ আপনার ফার্নিচার ঝলমলে থাকবে বহুদিন৷ এছাড়া সপ্তাহে নিয়ম করে শ্যাম্পু দিয়ে কাপড় ভিজিয়ে ভালো করে নিংড়ে মুছে নিন, খেয়াল করবেন যেন আসবাবে পানি না থাকে। এছাড়া, তিন মাস পরপর মোম এবং তেল দিয়ে আসবাব মুছে নিলে তা হয়ে উঠবে বেশ চকচকে এবং আকর্ষণীয় লাগবে। দুটি টি ব্যাগ এককাপ গরম পানিতে ডুবিয়ে রাখুন কিছুক্ষণ। তারপর সে পানিতে একটি পরিষ্কার কাপড় ভিজিয়ে নিয়ে তা দিয়ে পুরো আসবাব মুছে নিন। এতে কাঠের আসবাবে চলে আসবে নতুন ভাব।

কাঠের আসবাব
বাংলার সকল বাহারি নকশা সযত্নে খোঁদাই করা থাকে এই আসবাবগুলোতে

পানির দাগ তোলার উপায়

কাঠের আসবাবে সরাসরি কিছু রাখলে হোক তা গরম কিংবা ঠান্ডা দাগ পড়তে যেন সময়ই লাগে না। টেবিলে কিছু রাখার জন্য ম্যাট ব্যবহার করুন। এতে আসবাবের টেকসই ক্ষমতাও বাড়ে। এমনকি কাঠের আসবাবের ওপর টেবিল ল্যাম্প রাখার সময় এর নিচে টেবিল ম্যাট ব্যবহার করুন। কেননা দাগ পড়ে গেলে আপনারই কষ্ট হবে তাছাড়া আসবাবের ক্ষয়ক্ষতি তো আছেই।

 দাগের জায়গাটায় টুথপেস্ট লাগান (জেল হলে কিন্তু চলবে না, পেস্ট চাই)৷ তার পর একটা নরম কাপড় দিয়ে ঘষে ঘষে দাগটা তুলে ফেলুন৷ টুথপেস্টটা মোছার জন্য পরে আবার একটা আর্দ্র রুমাল বা তোয়ালে ব্যবহার করতে হবে।

আসবাবের কালি বা অন্যান্য কঠিন দাগ তোলার পদ্ধতি

এক টেবিলচামচ বেকিং সোডা আর পানি দিয়ে একটা মিশ্রণ তৈরি করুন৷ দাগের উপর এটা লাগিয়ে নিন, তার পর নরম কাপড়ে মুছে দাগটা তুলে ফেলুন৷ এইবার একটা আর্দ্র কাপড় এর উপর বুলিয়ে নিন, তার পর একটা শুকনো কাপড়ে মুছে ভেজাভাবটা শুষে নেবেন৷

কাঠের আসবাবের যত্ন নেওয়া কিন্তু কঠিন কিছু নয়। শুধু খেয়াল করে নিয়মিত পরিষ্কার করলেই অনেক সমস্যা থেকে আমরা মুক্তি পেতে পারি।

Write A Comment