Category

মাই হোম

Category

Reading Time: 3 minutes কংক্রিটের যে বাড়িতে আমরা থাকি সেখানে হয়তো, আকাশ দেখতে একটু কষ্ট হয়! ঠাণ্ডা বাতাসে গাঁ জুড়াতে যেতে হয় বাসার ছাদে কিংবা কোন দূর দূরান্তে। আসলেই কি তাই? না মনে হয়! আমাদের বাসার ভেতরেও এমন একটি জায়গা আছে যেখানে আমরা নিজের মত করে আকাশ দেখতে পারি, সময় কাটাতে পারি। সেটা হচ্ছে কারও কাছে বারান্দা আবার কারও কাছে বেলকনি! নানা সাইজ এবং নানান শেপের বারান্দা আছে এই শহরে। কিন্তু সবগুলোই হতে পারে রিলাক্সিং যদি আপনি একটু সাজিয়ে নিন। নিজের ঘরে শুধু নিজের জন্য একটি রিলাক্সিং কর্নার থাকাটা বেশ জরুরী। যেখানে আপনি কাটাবেন “মি টাইম”। বেলকনিটাও রিলাক্সিং হতে হবে। কয়েকটি সহজ টিপসে আপনিও পেতে পারেন একটি রিলাক্সিং বেলকনি …   সবুজ রাখুন যারা বাগান করতে ভালোবাসেন তাদের কাছে এ এক রাজকীয় সুযোগ। ছোট্ট একটা বাগান মনের মত সাজিয়ে নিলেই হয়ে গেল। কিন্তু মনে রাখতে হবে “লেস ইজ মোর”। সবরকম গাছ রেখে ঘিঞ্জি করবেন না। বেশি গাছ রেখে নিজের জন্য বেলকনিতে জায়গা বন্ধ করবেন না।…

Reading Time: 4 minutes ঘরের জন্য নানারকম সাজ এর কথা আমরা কমবেশি সবাই জানি। সময়ে সময়ে হোম ডেকোরে আসা নানা রকম ট্রেন্ড! আমরা সবকিছুতেই ট্রেন্ডি থাকতে ভীষণ ভালবাসি। এইজন্য হোম ডেকোরেও আনতে চাই নতুনত্ব। উৎসবের সময় হলে ঘরের ডেকোর বদলে ফেলি। বসন্তে ঘরের সাজ হয় রঙিন আবার বৈশাখে আনি বাঙ্গালিয়ানা। এভাবে সময়, দিন এমনকি মাস বুঝেও আমরা ঘরের ডেকোর বদলে নেই। যারা খুব বেশি ট্রেন্ডি ডেকোর পছন্দ করেন না, তাদের জন্য আজকের এই ব্লগ। যারা এখনও কাঠের আসবাব ভালোবাসেন, একদম প্রাকৃতিক আমেজ রাখতে চান, কোন রঙে কিংবা ঢঙে পরিবর্তন পছন্দ করেন না, তাদের জন্যও ঘরের ভেতরটা বদলে ফেলার কিছু জাদুকরী হোম ডেকোর টিপস আছে! ওল্ড স্কুল বা সেকেলের ডেকোর স্টাইল এবং মডার্ন স্টাইলকে অনেকটা একই পাত্রে পেশ করতে যাচ্ছি। প্রকৃতি যেমন একদম খাঁটি, কোন রকম বানোয়াট কিছু নেই। এই প্রকৃতিকে  ঠিক তার মত করে পেশ করে, হোম ডেকোরের আদলে আনতে যাচ্ছি, সাথে মডার্ন স্টাইল তো থাকছেই। রাস্টিক হোম ডেকোরটা বেশ সাদাসিধা এবং ক্লাসিক এবং…

Reading Time: 5 minutes ঘরের ছোট মানুষটার জন্য সবকিছু হওয়া চাই সেরা! ঘরের ছোটরা আমাদের জীবনের এবং ঘরের মধ্যমণি। কি মিষ্টি এই ছোট মানুষগুলো! এরা তাদের অনুভূতি স্পষ্ট বলে দিতে পারে মুখের উপর। এরা যেকোন অবস্থানে নিজেকে মানিয়ে নিতে না পারলেও চেষ্টা করে যায়। এরা সাহসী, এরা শক্তিশালী। নিজের প্রয়োজনে এরা কঠিন থেকে কঠিন কাজটাও দ্রুত করে ফেলতে পারে। ভয় যেন তাদেরকেও ভয় পায়। এমন দুরন্ত সাহসী মানুষগুলো প্রতিনিয়ত নিজের মধ্যেই বড় হতে থাকে। এদের চিন্তা ভাবনা এবং দৃষ্টিতে আসতে শুরু করে পরিবর্তনের ছোঁয়া। রোজ এরা নতুন কিছু করতে চায়, নতুন কিছু শিখতে চায়। এমন সৃষ্টিশীল মানুষগুলোর থাকার ঘরটা তাহলে কেন হবে আমার আপনার মত একঘেয়ে বা সাধারণ? হওয়া কি উচিত বলুন আপনি?    এই ছোট মানুষগুলো একটু একটু করে রোজ বড় হচ্ছে, প্রতি মুহূর্তে তারা নতুন কিছু ভাবছে। তাদের ভালো লাগা খারাপ লাগা তৈরি হতে থাকে সেই ছোট থেকে। দু বছর আগেও যা কিছু পছন্দ করত, আজ সেগুলো বড্ড ছেলেমানুষী তাদের কাছে। তাই,…

Reading Time: 4 minutes ঘরের সাজ নিয়ে ভাবতে গেলে আমরা কত শত ডেকোর আইডিয়া নিয়ে ভাবি। ইংরেজী ঘরানার আইডিয়াগুলো বরাবরই আমাদের অনুপ্রাণিত করে আসছে। কিন্তু, কোথাও কি আমরা বায়েস্ট হয়ে যাচ্ছি না, বিদেশী ধাঁচের সাজের প্রতি? আবার ভাবি, ঘরের জন্য যে সাজগুলো বেশি চোখের সামনে ভাসে সেগুলো তো বিদেশি ধাঁচেরই। ঘরের সাজে সংস্কৃতির ছোঁয়া যারা আনতে চাই তাদের জন্য আজকের এই আয়োজন।  দেশীয় পণ্য থেকে শুরু করে দেশীয় সাজ, দুটোই আমরা উৎসবেই বেশি পছন্দ করি। কিন্তু, উৎসব ছাড়াও কিন্তু ঘরের সাজে বাঙালিয়ানা রাখা সম্ভব। অনেকে নিশ্চয়ই ভাবছেন, উৎসবের দিনগুলো বাদে ঘরের সাজে বাঙালিয়ানা কি আদৌ মানাবে? এমন প্রশ্ন মনে এসে থাকলে তার উত্তর এখানেই পেয়ে যাবেন।  বেশি কিছু করতে না চাইলে একটি চমৎকার সহজ উপায়  হচ্ছে, বাঁশ বা বেতের আসবাব ব্যবহার করুন। এগুলো যেমন দেখতে সুন্দর তেমনি টেকসই! দামেও সাধ্যের মধ্যেই হবে। বাসার সব আসবাব যদি বেতের হয় ঘরে কিন্তু, বাঙালিয়ানা বেশ ফুটে উঠবে। বেডরুম  বেডরুম এমন একটি জায়গা যা কিনা একান্ত আপনার। তাহলে,নিজের…

Reading Time: 3 minutes বেডরুম আমাদের কাছে শুধু শোবার ঘর নয় কিন্তু! শোবার ঘরের থেকেও যেন বেশি কিছু। কম বেশি সকলেই নিজের এক অন্য ভুবন গড়ে তুলি নিজের এই বেডরুমে। সেটা বেডরুমের জন্য আসবাব কেনা থেকে শুরু করে ঘরের ডেকোর সবকিছু প্ল্যান করবার আগে আমরা যথেষ্ট সময় নেই। চিন্তা ভাবনা করে তবেই কোন সিদ্ধান্ত পৌঁছাই । ঘরের জন্য সব আসবাব সম্বন্ধে আমরা কম বেশি জানি। ঘরের জন্য আসবাব কেনার আগে কিছু জিনিস জেনে তবেই আসবাব কিনি ! ঘরের জন্য আসবাব হিসেবে আলমারি আমরা অনেকেই বেঁছে নেই কিন্তু, একটা আসবাব এমন আছে যাকে ঘিরে রয়েছে নানা প্রশ্ন! কি সেই আসবাব!  বেডরুম কেবিনেট! হ্যাঁ, ঠিক ভাবছেন! এই বেডরুম কেবিনেট নিয়ে রয়েছে নানা প্রশ্ন। কেউ বলে কেবিনেট বেশ উপকারী আবার কেউ বলে কিনা, না এটা মোটেও ভাল না। বেডরুম কেবিনেটের গুণাগুণ আমরা অনেকেই কমবেশি জানি! চলুন না একটা স্বচ্ছ তালিকা তৈরি করে নেই, যেটা পড়লে আপনি নিজেই সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন যে, আপনার ঘরের জন্য বেডরুম কেবিনেট উপকারী…

Reading Time: 3 minutes ফুল ফুটুক আর না ফুটুক আজি বসন্ত কবি সুভাষ মুখোপাধ্যায়ের এই অমরপঙক্তিটি আমাদের মনে করিয়ে দেয় যে ফাল্গুনের আগমন হতে যাচ্ছে, তখন ফুল ফুটুক আর না ফুটুক ঘরে ফাল্গুনের ছোঁয়া আনতে হয়। ফাল্গুনে কোন শাড়ি আর পাঞ্জাবী পড়বেন তা নিশ্চয়ই ঠিক করে ফেলেছেন? তাইনা ঘরের জন্য তাহলে কি করছেন? ফাল্গুনে কিন্তু এবার ভালোবাসা দিবসও যুক্ত হয়েছে, সুতরাং আনন্দ এবং উৎসব উদযাপনের সুযোগ এবার দ্বিগুণ! এমন দ্বিগুণ আনন্দে মেহমানদের আগমন হবে বেশ। সুতরাং বেশি কিছু নয় ছোট কিন্তু বিশেষ কিছু উপায়ে ফাল্গুনে ঘরের সাজ হয়ে উঠতে পারে আকর্ষণীয়। কিভাবে পড়তে থাকুন জেনে যাবেন! “ফুলে ফুলে ভরে উঠুক ঘর কিংবা আপনার মন” বসন্তের সব ফুল নিশ্চয়ই ফাল্গুনের প্রথম দিনেই ফুটবে না! কিন্তু আপনার কোন ফুল টা প্রিয় এবং কবে নাগাদ ফুটবে সেটা জেনে নেওয়া যায় তাইনা? বসন্তে ফোটে যে ফুলগুলো সেগুলো সম্বন্ধে জানতে কিন্তু ভালোই লাগে। কত রকম বাহারি ফুল যে ফোটে এই সময়ে। তবে গাঁদা ফুলটা কিন্তু সবসময়ই ঢাকার ফুলের দোকানগুলোতে…

Reading Time: 3 minutes সে সময়ের ঢাকা কিন্তু আজকের মত এমন জরাজীর্ণ ছিল না। আগের ঢাকা কেমন ছিল এর নাহয় শ’খানেক ছবি আপনি পেয়েই যাবেন। কিন্তু তখনকার সময়ের বাড়িগুলো কেমন ছিল? কখনও কি ভেবেছি আমরা? অনেকেই হয়তো ভেবেছি কিন্তু তেমন একটা উপসংহারে পৌঁছানো হয়নি। চলুন না, আজকে একটু পেছনের সময়ে ঘুরে ফিরে আসা যাক। খুব বেশি দূরের কথা বলছি না। এই ধরুন ৬০ দশকের সময় ঢাকার বাড়িগুলো কেমন ছিল? কী নকশায় তখনকার বাড়িগুলো তৈরি করা হতো? বাড়ি তৈরির ক্ষেত্রে কোন বিষয়গুলোকে দেওয়া হতো বেশি প্রাধান্য! কোন প্যাটার্নটা বেশি অনুসরণ করা হতো, কেমন রঙ ব্যবহার করত সবাই। এমন অনেক কিছুই আছে যা কিনা আমরা খেয়াল করিনি।  চলুন তো জেনে নেই, কেমন ছিল আগেকার সময়ের বাড়িগুলো !  “বড় আঙিনা বা বারান্দা থাকতো, যেখানে কাটতো পরিবারের সাথে একান্ত কিছু সময়” তখনকার সময়ে ঘর ছোট বড় যেমনই হোক না কেন বারান্দা বা খোলামেলা আঙ্গিনা অথবা বাগান থাকতো। জায়গা জমির বড় একটা অংশ জুরে থাকতো বাগান। সেই বাগানে থাকতো…

Reading Time: 3 minutes স্বপ্ন আর সাদ্ধের সমন্বয়ে আমাদের জীবন। আমরা চেষ্টা করি সাদ্ধমত যেন আমাদের নিজেদের একটা বাড়ি হয়। সেই বাড়িটি ছোট হোক আর বড় আমরা চাই সেটাকে নিজের মত করে সাজাতে । বাড়ি হোক আর ফ্ল্যাট হওয়া চাই মনের মত। আর সেই স্বপ্নের বাড়িটি যদি পরিসরে একটু ছোটও হয় তাতে কোন ক্ষতি নেই। একটু মাথা খাঁটিয়ে ঘরের জন্য রঙ বাছাই করলেই আপনার ছোট ঘরটিও হয়ে উঠতে পারে খোলামেলা আর বড়। আজ আপনাদের এমন কিছু টিপস দেবো যা দিয়ে আপনি আপনার ছোট ফ্ল্যাটের ছোট ছোট রুম গুলোকেও দিতে পারেন খোলামেলা একটা ভাব। রঙের সাহায্যে ঘরকে বড় দেখানো সম্ভব খুব সুন্দর করে। প্রয়োজনীয় কিছু টিপস  ঘরের রঙ হল বাসার প্রধান একটি বিষয়। ভাবুন, ঘরে ঢুকেই আপনার চোখে সবচেয়ে প্রথমে কি পড়ে? আপনার উত্তর হবে দেয়ালের রঙ। সুতরাং, আপনার ছোট ঘরকে অবশ্যই হাল্কা রঙ দিয়ে রাঙিয়ে নিন। সব থেকে ভাল হয় সাদা রঙ ব্যবহার করলে । তাছাড়া আরো কিছু হালকা রঙ আছে যা একটি ছোট…

Reading Time: 3 minutes আপনার কাছে সবচেয়ে মূল্যবান সম্পদ হচ্ছে, আপনার পরিবার। কঠিন কিংবা সহজ সবসময় যারা আপনার পাশে থাকে তারাই তো আপনরা সবচেয়ে বড় সম্পদ। তাদের জন্য একটা সুন্দর পরিবেশ ঘরের ভেতর তৈরি করা আপনার প্রথম কর্তব্য। সারাদিনের যার যার ঝক্কি ঝামেলা ডিঙিয়ে যার তারপর যে ঠিকানায় এসে থামি সেটাই তো বাসা বা বাড়ি? চারটা দেয়াল, একটা ছাঁদ কখনই একটি ভালোবাসার ঘর তৈরি করতে পারে না। সুখের ঘর তৈরি করে, সেখানে থাকা মানুষগুলো। আজকের ব্লগটি শুধু তাদের জন্য। কিভাবে কী করলে আপনার ঘরটি হয়ে উঠবে। আরও, উৎফুল্লময় আরও আনন্দের। কেননা, ঘরের জন্য উৎফুল্লময় পরিবেশ ঠিক ততোটাই জরুরী যতটা আপনার নিজের ভালো থাকা। সুতরাং দেরি না করে চলুন শুরু করা যাক।  ঘরের পরিবেশটা রিল্যাক্সিং রাখুন ঘরে কিভাবে ইতিবাচক পরিবেশ তৈরি করা যায় সেটা সবারই আগে ভাবতে হবে।নতুন করবার সময় সবার কাছে থাকে না। কেননা আমরা এমন কিছু করি যেখানে, ঘরের আগের জিনিসপত্রগুলোই একটু এদিক সেদিক করে নিলেই কিন্তু আলাদা একটা পরিবেশ তৈরি হয়ে যায়।…

Reading Time: 3 minutes রোদ, বর্ষা কিংবা ধুলাবালি মোটামুটি সবকিছু থেকেই একটু করে আড়াল করে রাখে পর্দা। পর্দার আড়াল থেকে আকাশ দেখতেও কিন্তু, বেশ ভালো লাগে! রাতের আকাশের চাঁদটা যখন একটু করে উঁকি দেয় আপনার ঘরের পর্দার আড়াল থেকে তখন কিন্তু অন্যরকম একটা আবহ তৈরি হয়ে যায়। সৌন্দর্য বাড়ানোর ক্ষেত্রে হোক বা সুরক্ষা পর্দার ভূমিকা বরাবরই বেশি। ঘরের জন্য পর্দা কিনতে গিয়ে সবচেয়ে সুন্দর পর্দাগুলোই আমরা বেঁছে নিয়ে আসি কিন্তু কখনও ভাবা হয় না ঘরের সাথে কি মানাবে এই পর্দাটা? অনেক সময় তো এমনও হয় শোবার ঘরে দেওয়া হয়েছে ড্রয়িং রুমের পর্দা, এ এক অন্যরকম বিপাক। কোন ঘরের জন্য কেমন পর্দা প্রয়োজন কজনই বা জানে। পর্দা বাছাইয়ের ক্ষেত্রে জানতে হবে কিছু প্রয়োজনীয় টিপস। বেডরুম  বেডরুমের জন্য সবসময়ই একটু ভারী পর্দা বাছাই কর ভালো। বেডরুমটা সবার কাছেই বেশ গোপন একটি জায়গা। আমরা এখানে একদম নিজের মত করে থাকতে পছন্দ করি। সেক্ষেত্রে পর্দাটা বাছাই করবেন একটু মোটা কাপড়ের যাতে করে বাইরে থেকে ঘরের ভেতরকার কিছু যেন…