Category

মাই হোম

Category

Reading Time: 3 minutes আপনার কাছে সবচেয়ে মূল্যবান সম্পদ হচ্ছে, আপনার পরিবার। কঠিন কিংবা সহজ সবসময় যারা আপনার পাশে থাকে তারাই তো আপনরা সবচেয়ে বড় সম্পদ। তাদের জন্য একটা সুন্দর পরিবেশ ঘরের ভেতর তৈরি করা আপনার প্রথম কর্তব্য। সারাদিনের যার যার ঝক্কি ঝামেলা ডিঙিয়ে যার তারপর যে ঠিকানায় এসে থামি সেটাই তো বাসা বা বাড়ি? চারটা দেয়াল, একটা ছাঁদ কখনই একটি ভালোবাসার ঘর তৈরি করতে পারে না। সুখের ঘর তৈরি করে, সেখানে থাকা মানুষগুলো। আজকের ব্লগটি শুধু তাদের জন্য। কিভাবে কী করলে আপনার ঘরটি হয়ে উঠবে। আরও, উৎফুল্লময় আরও আনন্দের। কেননা, ঘরের জন্য উৎফুল্লময় পরিবেশ ঠিক ততোটাই জরুরী যতটা আপনার নিজের ভালো থাকা। সুতরাং দেরি না করে চলুন শুরু করা যাক।  ঘরের পরিবেশটা রিল্যাক্সিং রাখুন ঘরে কিভাবে ইতিবাচক পরিবেশ তৈরি করা যায় সেটা সবারই আগে ভাবতে হবে।নতুন করবার সময় সবার কাছে থাকে না। কেননা আমরা এমন কিছু করি যেখানে, ঘরের আগের জিনিসপত্রগুলোই একটু এদিক সেদিক করে নিলেই কিন্তু আলাদা একটা পরিবেশ তৈরি হয়ে যায়।…

Reading Time: 3 minutes রোদ, বর্ষা কিংবা ধুলাবালি মোটামুটি সবকিছু থেকেই একটু করে আড়াল করে রাখে পর্দা। পর্দার আড়াল থেকে আকাশ দেখতেও কিন্তু, বেশ ভালো লাগে! রাতের আকাশের চাঁদটা যখন একটু করে উঁকি দেয় আপনার ঘরের পর্দার আড়াল থেকে তখন কিন্তু অন্যরকম একটা আবহ তৈরি হয়ে যায়। সৌন্দর্য বাড়ানোর ক্ষেত্রে হোক বা সুরক্ষা পর্দার ভূমিকা বরাবরই বেশি। ঘরের জন্য পর্দা কিনতে গিয়ে সবচেয়ে সুন্দর পর্দাগুলোই আমরা বেঁছে নিয়ে আসি কিন্তু কখনও ভাবা হয় না ঘরের সাথে কি মানাবে এই পর্দাটা? অনেক সময় তো এমনও হয় শোবার ঘরে দেওয়া হয়েছে ড্রয়িং রুমের পর্দা, এ এক অন্যরকম বিপাক। কোন ঘরের জন্য কেমন পর্দা প্রয়োজন কজনই বা জানে। পর্দা বাছাইয়ের ক্ষেত্রে জানতে হবে কিছু প্রয়োজনীয় টিপস। বেডরুম  বেডরুমের জন্য সবসময়ই একটু ভারী পর্দা বাছাই কর ভালো। বেডরুমটা সবার কাছেই বেশ গোপন একটি জায়গা। আমরা এখানে একদম নিজের মত করে থাকতে পছন্দ করি। সেক্ষেত্রে পর্দাটা বাছাই করবেন একটু মোটা কাপড়ের যাতে করে বাইরে থেকে ঘরের ভেতরকার কিছু যেন…

Reading Time: 4 minutes নতুন বছরকে বরণ করতে যেন আমাদের আগ্রহের শেষ নেই। ঘর সাজাতে কার না ভলো লাগে? নতুন বছরে নিজেকে নতুন করে পেতে আমরা নতুন পোশাকে সাজি। সাজিয়েছি পরিবারের সবাইকে। অনেকেই আছি যারা ঘর দুয়ারও সাজিয়ে ফেলেছি। আর যারা সময় করে উঠতে পারেননি তারাও কিন্তু আজকের ব্লগটি পড়ে টিপস নিতে পারেন। নতুন বছরের আনন্দ দিগুণ করতে ঘরের ভেতরের সাজটাও হওয়া চাই একদম নতুনের মত। কমবেশি হোম ডেকরের টিপস আমরা সবাই জানি, এবার নতুন কি করা যায়? যেটায় নিউ ইয়ারে ঘরের সাজ হয়ে উঠবে আকর্ষণীয়। নতুন বছরের সকল সম্ভাবনার ঝলকানি থাকা চাই এই সাজে। উৎসব আমেজ আনতে খুব বেশি কষ্ট কিন্তু করতে হয় না। সময় খুব অল্প, কম সময় এবং অল্প কষ্টে কিভাবে ঘরে উৎসব আনা যায় সেটাই চলুন জেনে নেই।   কুশন কাভার পরিবর্তন করুন  অল্পে যদি ঘরের আমেজ এবং সোফার রুপ বদলে ফেলতে চান সেক্ষেত্রে কুশন কাভারের থেকে চমৎকার কোন আইডিয়া হতে পারে না! ঘরের এই ছোট ছোট পরিবর্তন কিন্তু বেশ নজর কাড়ে।…

Reading Time: 3 minutes ঘরের জন্য সঠিক রঙ বাছাই করা সহজ বিষয় নয়, কিন্তু আপনি যদি সঠিকভাবে পরিকল্পনা করেন সেটা আপনার ঘরের জন্য হতে পারে নজরকারা একটি সিদ্ধান্ত। অনেকেই আছি আমরা যারা ভাবি দোকানে গেলাম পছন্দের রঙ নিলাম ব্যস কাজ শেষ! কাজটা মোটেও এমনভাবে শেষ হওয়া উচিত নয়। দেয়ালের রঙ চাইলেই বদল করা যায় না, এর জন্য যেমন সময় প্রয়োজন তেমনি খরচও। ঘরের রঙ বাছাই করা মোটেও একদিনের বিষয় নয়। কিছু ধাপ রয়েছে সেগুলো সঠিকভাবে সম্পন্ন করে তবেই ঘরের জন্য সঠিক রঙ বেঁছে নেওয়া সম্ভব। আর দেরি না করে চলুন সেই ধাপগুলো জেনে নেওয়া যাক।  আগেই রঙ বাছাই করবেন না  এটা খুবই স্বাভাবিক ঘরের রঙটা আগেই বাছাই করে নেওয়া। কিন্তু, এই কাজটাই আজ করতে মানা! হ্যাঁ, ঠিক পড়ছেন। আগেই ঘরের জন্য রঙ ঠিক করে ফেলবেন না। কমবেশি আমরা সবাই আগে থেকে রঙ ঠিক করে রাখি তারপর, দোকানে গিয়ে ভিড় জমাই। এতে কোন দোষ নেই কিন্তু, সর্বপ্রথম যা করা উচিত তা হল ঘরের ডেকোর অনুযায়ী…

Reading Time: 3 minutes আপনার পুরো বাড়িটাই আপনার কাছে প্রিয়। সময় আর যত্ন দিয়ে দিনের পর দিন প্ল্যানিং করে তবেই না আজকের বাড়িটা নিজের হয়েছে। একটু সময় নিয়ে ভাবলে লক্ষ্য করতে পারবেন যে আপনার বাড়ির অনেক গুরুত্বপূর্ণ যে অংশটি সেটিই কিনা অবহেলায় বেছে নেওয়া হয়। ভাবছেন এ আবার কোন অংশ যা কিনা এতটা অবহেলিত? সেটি হচ্ছে আপনার বাড়ির প্রবেশদ্বার মানে প্রধান দরজা। শুধু যে প্রধান দরজা তা নয়। আপনার বাড়ির প্রায় সকল দরজাইহতে পারে হুটহাট করে বেছে নেওয়া। কিছু বিষয় রয়েছে সেগুলো নিশ্চিত করে তবেই ঘরের জন্য দরজা বেছে নেওয়া উচিত। কিন্তু আমরা অনেকেই এই বিষয়গুলো এড়িয়ে যাই। আজ এড়িয়ে না গিয়ে চলুন জেনে নেই যে ঘরের জন্য দরজা কিনতে গিয়ে কোন বিষয়গুলো অবশ্যই খেয়াল রাখা জরুরি। মজবুত হওয়া চাই  শুধু যে প্রধান দরজাই মজবুত হতে হবে এমন কিন্তু নয়! প্রধান দরজার পাশাপাশি বাকী ঘরের দরজাগুলোও একই রকম প্রয়োজনীয় তাই  সেগুলোও হওয়া চাই মজবুত। অনেকেই মনে করেন বাকী ঘরগুলোর দরজা মোটামুটি মজবুত হলেই হয়ে…

Reading Time: 3 minutes বেশ পুরনো একটি বাড়ি। বয়স প্রায় ১০-১২ বছর। আগের সময়কার পুরনো দিনের ডেকর এর মত সাদামাটা চেহারা। যেন পুরনো সময়ের স্মৃতি এখনও জীবন্ত আছে। কিন্তু ভেতরে প্রবেশ করতেই একবারে ভিন্ন পৃথিবী। একটু একটু করে সময় নিয়ে সাজানো বাসাটি। বাসা যদি সংস্কার করা কিছুটা কঠিন হয়ে থাকে সেক্ষেত্রে ঘরের সাজে নতুনত্ব এনে দেখুন। রেনোভেশনের জাদুকাঠিতে ঘরের ভেতরটা কিন্তু, একদম বদলে ফেলা সম্ভব! জানতে চাচ্ছেন কিভাবে? পড়তে থাকুন……   যেকোন কাজে হাত দেবার আগে যা করতে হবে সেটা হচ্ছে, প্ল্যানিং! কাগজে কলমে প্ল্যানিং করলে তবেই না ঘরের জন্য একটা চমৎকার সাজ দেয়া সম্ভব। সুতরাং, প্ল্যানিং মাস্ট!   আসবাবের স্থান পরিবর্তন করুন   আসবাব বাতিল করবার কোন প্রয়োজন নেই, কিছুটা স্থান পরিবর্তন করলেই হবে। কিছু কিছু পুরনো আসবাব ঘরের জন্য জাদুর মত কাজ করে। যেমন, পুরনো কফির টেবিল, দাদুর রকিং চেয়ার ইত্যাদি। এগুলো কখনই বদলে ফেলার কথা ভাববেনও না। এগুলোই তো দিন শেষে ঘরের গল্প বলবে। ঘরের কর্নারের খাট কিছুটা মাঝখানে রাখার কথা ভাবুন। দেখবেন ঘর…

Reading Time: 4 minutes বিয়ে নিয়ে যেন জল্পনা-কল্পনার কোন শেষ নেই। কনের শাড়ি, কনের সাজ কেমন হবে? বরের পাগড়ীটা হওয়া চাই একদম রাজকীয়। হলুদের ডালাগুলো যেন হয় হাল ফ্যাশনের। ঘরের ছোটদের থেকে শুরু করে বড়রা কেউই যেন বাদ যায় না। এত সবকিছুর মধ্যে যদি কোন কিছু বাদ পড়ে যায় সেটা হল, আপনার প্রিয় বাড়িটি। বাড়ির একেক ঘরে যেখানে একেক স্মৃতি বাসা বেঁধেছে, সে জায়গাটি কেন অবহেলায় থাকবে? অধিকাংশ বিয়ের অনুষ্ঠানই এখন বিভিন্ন চাইনিজ রেস্টুরেন্ট কিংবা কমিউনিটি সেন্টারে হয়ে থাকে বলে অনেকে বাড়িতে বেশি নজর দেন না। কিন্তু মেহমানের আনাগোনা যেন আপনার বাড়িতেই বেশি হয়ে থাকে। সুতরাং বিয়ের আমেজের প্রয়োজন কিন্তু এখানেও আছে। যারা কিনা একটু ঘরোয়াভাবে বিয়ে করতে যাচ্ছেন, বিয়ের সময়ে ঘরের সাজ নিয়ে তাদের আর ভাবনা নেই। কম সময়ে কম ঝামেলার মধ্যে নিজেরাই সাজিয়ে ফেলতে পারবেন বিয়ে বাড়ি। চলুন, ঝটপট শুরু করা যাক।  ড্রয়িং রুম  বিয়ে বলে কথা! রাজ্যের মেহমান এসে যেখানে ভিড় জমাবে সেটা কিন্তু আপনার বাসা। আর বাসার ভেতর যেখানে সবাই…

Reading Time: 3 minutes সময়ের সাথে ঘরের সাজে যেমন আধুনিকতা এসেছে তেমনি আমাদের দৈনন্দিন জীবনেও এসেছে বিলাসিতা আর আয়েসের ছোঁয়া। আমরা সারাটা দিন ছুটে বেড়াতে রাজি আছি কিন্তু দিনশেষে বাড়ি ফিরে একটু কম আরাম করতে রাজি নই। সারা দিন যতই ধকল থাকুক না কেন তা শাওয়ার করতেই শেষ হয়ে যায়। তাহলে সেই শান্তির শাওয়ার যেন একটু আরামদায়ক আর বিলাসবহুল করতে ক্ষতি কি?  ঘরের ভেতর ও বাইরের সাঁজে যেমন নানা রকমের পরিবর্তন স্পর্শ করেছে তেমনি, বাথরুমও আর আগের মত সাদাসিধে নেই। এসেছে বাহারি নকশা, ফিটিংস আর টাইলসের বাহার। দিনশেষের এই শাওয়ারটা একদম মনের মত হওয়া যেন বেশ জরুরী। শখ আর সৌখিনতা যখন আরাম আয়েসের ব্যাপার হয়ে দাড়ায় তখন আর তা শখ থাকে না হয়ে উঠে প্রয়োজন। আপনারা ঠিকই ভাবছেন। কথা হচ্ছে ‘বাথটাব’ নিয়ে। অনেকের কাছে এটা বিলাসিতা আবার অনেকের কাছে এটা প্রয়োজন। বাথরুমের জন্য বাথটাব কত রকমের আছে, কেমন সেগুলোর দাম এবং কোথায় পাওয়া যাবে এই সম্বন্ধে জানতে পড়তে থাকুন। তাহলে, শুরু করা যাক। বাথটাব আসলে…

Reading Time: 4 minutes পারফেক্ট প্ল্যানিং আর সময় নিয়ে যেকোন বাসাকেই তৈরি করা যাবে ট্রেন্ডি। হোম ডেকোর আমরা কম বেশি সবাই জানি এবং ইতিমধ্যে সেইসব আইডিয়া প্রয়োগও করেছি। দেয়ালের রঙ বদলানো থেকে শুরু করে মাথার উপর সিলিংটাও এখন নতুনের মত। কতশত ঘরের সাজের টিপস আমরা জানি। কিন্তু এমন ভাবনা নিশ্চয়ই মাথায় এসেছে যে, “সময়ের সাথে প্রতিনিয়ত বদলাচ্ছে ট্রেন্ড এমন কি করা যায় যা কিনা সবসময়ই আমার বাসাকে রাখবে সবার থেকে আলাদা আর সুন্দর”। কখনো ভেবেছেন কি দেশভেদে রয়েছে কত সংস্কৃতি! যে সংস্কৃতি আপনার ভালো লাগবে সেই সংস্কৃতির কিছু অংশ নিয়েই নিজের ঘরের সাজ বদলে ফেলতে পারেন। শুনে মনে হচ্ছে এটা অনেক ব্যয়বহুল একটা আইডিয়া। একদমই না। আপনি যেকোন লোকাল মার্কেটেই পেয়ে যাবেন ঘরে সংস্কৃতির ছোঁয়া আনার সকল উপকরণ। সঠিক প্ল্যানিং থাকলে আপনার বেশি সময় লাগবে না। এবং এই টিপসগুলো জেনে রাখলে আপনার প্ল্যানিং করতে আরও সহজ হবে।  ভিন্নতা থাকুক  হয়তো ভাবছেন, ঘরে সংস্কৃতির ছোঁয়া দিতে গেলে আগের যে ডেকোর করা আছে তার সাথে কি…

Reading Time: 4 minutes ভূত! কেউ বলবে এসব ছাইপাঁশ আবার কেউ বলবে সত্যি। এইসব নিজে না দেখলে কখনও বিশ্বাস করা যায় না। ভূত প্রেত নিয়ে বিজ্ঞানেও রয়েছে কড়া যুক্তি তর্ক। বিজ্ঞানীরা ভূতের অস্তিত্ব মানতে নারাজ হলেও সাধারণ মানুষ কিন্তু তার উল্টো। আগে মনে হতো গ্রামগঞ্জের মানুষ এইসব বেশি মানে কিন্তু না! এখন যেন ঢাকার ঠিকানা পেয়েছে রাজ্যের যত ভূতরা। আছে এমন কিছু ভূতের বাড়ির গল্প যেগুলো শুনে ভয় পেতে পারেন আপনিও। গল্প শুনে আপনার মনে হতেই পারে আপনার ঘরেও আছে নাকি ভূত প্রেত? এমন ভূতের ভয় কিন্তু সত্যি আছে কিছু এলাকায়। যেখানে নাকি ভূতের বাড়ি ভেবে ছাড়ছে বাসা আবার কেউ কেউ ছাড়ছে বিল্ডিং। চলুন তাহলে আর দেরি না করে শুরু করা যাক, ঢাকার শহরের সারা জাগানো কয়েকটি ভূতের বাড়ির গল্প।  ধানমন্ডি ২৭ নং  শহরের অন্যতম জনপ্রিয় আবাসিক এলাকা ধানমন্ডি। যেখানে কিনা অ্যাপার্টমেন্ট খালি পাওয়া যায় না। এত মানুষের আনাগোনার মধ্যে একটি অ্যাপার্টমেন্ট এমন আছে যেখানে সব চেয়ে কম ভাড়ায় টুলেট ঝুলিয়েও নাকি ভাড়াটিয়া খুঁজে…